HeadLogo

খুনকে আত্মহত্যা বলে খুনিদের বাঁচাতে তৎপর দামছড়া থানার ওসি, অভিযোগ মৃতের পরিবারের - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
০৭ নভেম্বর ২০২০  
শনিবার          

ধর্মনগর প্রতিনিধিঃ সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে খুন করার বহুদিন পেরিয়ে যাওয়ার পরেও এখনো খুনিদের গ্রেপ্তার করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ উত্তরের দামছড়া থানার পুলিশ।পাশাপাশি খুনের ঘটনাকে আত্মহত্যার ঘটনা বলে অপরাধীদের পার পাড়িয়ে দেওয়ার কৌশল নিয়েছে পুলিশ। তাই সাংবাদিক সম্মেলনের মধ্য দিয়ে অপরাধীদের গ্রেফতারের দাবি তুললেন দামছড়ায় খুন হওয়া রনেন্দ্র সিনহার ভাই রাজেশ সিনহা। প্রসঙ্গত গত ১৭ অক্টোবর  রাত্রিবেলা দামছড়া থানাধিন নরেন্দ্রনগর এলাকার বাসিন্দা রনেন্দ্র সিনহা ও অঞ্জন সিনহা বাইকে চেপে কোন এক ব্যক্তিগত কাজ সেরে বাড়ি ফেরার পথে দামছড়ার নিতাইনগর এলাকায় এলে তাদের বাইকের তেল শেষ হয়ে যায়। 


রনেন্দ্র ও অঞ্জন নিতাইনগর হিমসকঙ এডিসি ভিলেজ এর বাসিন্দা নন্দরাম ত্রিপুরার বাড়ির সম্মুখে বাইক রেখে তেলের খোঁজে নন্দরাম ত্রিপুরার বাড়িতে গেলে কোন এক বিষয়ে তাদের মধ্যে বচসা বাধে। রাজেশ সিনহার অভিযোগ বচসার পরে নন্দরাম ত্রিপুরা ও উনার স্ত্রী নয়নী ত্রিপুরা এবং পুত্র খোকন ত্রিপুরা ও ক্ষেত্রজয় রুপিনির নেতৃত্বে প্রায় ৮ থেকে ১০ জনের একটি গোষ্ঠী অঞ্জন ও রনেন্দ্রকে বেধড়ক মারধর করেন।পরবর্তীতে নরেন্দ্রনগর এলাকার জনৈক ব্যক্তির নিকট ফোন যোগে অঞ্জন রনেন্দ্র কে নিয়ে যাওয়ার জন্য জানানো হয়। খবর পেয়ে রাত্রিবেলায় নরেন্দ্রনগর এলাকার জনগণ তাদের দুজনকে উদ্ধার করতে নিতাইনগরে ছুটে যান। ঘটনাস্থলে যাওয়ার পরে অঞ্জন সিনহাকে তাদের হাতে তুলে দিলেও রনেন্দ্র সিনহার কোন হদিস পাওয়া যায় না। 


রাত পেরিয়ে সকাল হলে রনেন্দ্র সিনহার কোন খোঁজ না পেয়ে তার পরিবারের লোকজন দামছড়া থানায় রনেন্দ্র সিনহার নামে একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন।অবশেষে ১৯ অক্টোবর আবারো নরেন্দ্রনগরের লোকজন নিখোঁজ রনেন্দ্র কে খুঁজতে নিতাইনগর ছুটে গিয়ে খোঁজাখুঁজি করতে করতে ঘটনাস্থল থেকে খানিক দূরে পিপলছড়ার মাইকেল ত্রিপুরার বাড়ির পাশে ছড়ার জল থেকে রনেন্দ্র ত্রিপুরার ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার করেন। সাংবাদিক সম্মেলনে মৃত রনেন্দ্র সিনহার ভাই রাজেশ সিনহা জানিয়েছেন তার ভাইয়ের মৃতদেহে অসংখ্য ক্ষতের চিহ্ন ছিল। যা দেখে স্পষ্ট বোঝা যায় সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে খুন করে রনেন্দ্রকে ছড়ার জলে ভাসিয়ে দেওয়া হয়। সেই মোতাবেক পরবর্তীতে রাজেশ সিনহা দামছড়া থানায় একটি খুনের মামলা নথিভূক্ত করেন। কিন্ত  এই ঘটনাটিকে মোটা অংকের বিনিময়ে  রফাদফার মধ্য দিয়ে খুনের পরিবর্তে আত্মহত্যার তকমা দিয়ে অপরাধীদের বাঁচিয়ে দেবার চেষ্টা করছে দামছাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি। সাংবাদিক সম্মেলন করে এমনই অভিযোগ তুললেন রাজেশ সিনহা। 


ফলে এবার সঠিক বিচারের আশায় সাংবাদিক সম্মেলনের মধ্য দিয়ে রাজেশ সিনহা অতিসত্বর খুনি অপরাধীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন। পাশাপাশি তিনি আরো বলেছেন তার ভাই মৃত রনেন্দ্র সিনহার স্ত্রী ও তিন সন্তান রয়েছে। রনেন্দ্র একাই পরিবারে উপার্জন করতো। ফলে তার মৃত্যুতে গোটা পরিবারের মধ্যে চরম দৈনতা নেমে এসেছে। তাই সরকারি তরফ থেকে আর্থিক সাহায্য এবং ভবিষ্যতে একটি সরকারি চাকরির দাবি করেছেন রাজেশ সিনহা। এই ঘটনার পর থেকে নরেন্দ্রনগর এলাকার মণিপুরী সম্প্রদায়ের লোকজন দামছড়া থেকে ধর্মনগর ও কৈলাশহরে যাতায়াতের ক্ষেত্রে নিরাপত্তার অভাব অনুভব করছেন। এই এলাকায় কড়া নিরাপত্তা দাবি করেছেন তিনি। ধর্মনগরের আয়োজিত এই সাংবাদিক সম্মেলনের মূল উদ্যোক্তা ছিলেন যুব বিষ্ণুপ্রিয়া মনিপুরী এসোসিয়েশন ও কৈলাশহর এর বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী ইউথ অ্যাসোসিয়েশন সর্বশেষ জানানো হয়েছে ঘটনার সঠিক তদন্তের মাধ্যমে অপরাধীদের শাস্তির ব্যবস্থা না করলে আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলনে নামবেন তারা।

কোন মন্তব্য নেই