HeadLogo

এক সময়ের কুখ্যাত সি পি আই এম নেতার হাতে এক গৃহবধূ ধর্ষণের চেষ্টা - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
১১ নভেম্বর ২০২০  
বুধবার          

বিশালগড় প্রতিনিধিঃ সি পি আই এম নেতার হাতে এক গৃহবধূ ধর্ষণের চেষ্টা থানায় মামলা এলাকায় উত্তেজনা অভিযুক্ত নেতা পলাতক। এক সময়ের কুখ্যাত সিপিএম নেতার হাতে এক অসহায় গৃহবধূ বলাৎকারের চেষ্টা শেষ পর্যন্ত সেই গৃহবধূর চিৎকারে এলাকার জনগণ এগিয়ে আসলে অভিযুক্ত বাম নেতা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। যদিও সেই গৃহবধূকে গলায় হাতে এবং মাথায় বেধড়ক আঘাত করে শুধু তাই নয় সেই দুই সন্তানের মাকে প্রাণে মারার চেষ্টা করে তার সাথে সম্মতি না করায়। পরবর্তী সময়ে গৃহবধূর গলা থেকে ১ ভরি ওজনের গলার স্বর্ণের চেইন এবং কানের দুল ছিনিয়ে নেয় ঐ বাম নেতা।পরবর্তী সময়ে সেই গৃহবধূর পক্ষ থেকে  মঙ্গলবার রাত ১১ টায় মধুপুর থানায় অভিযুক্ত সি পি আই এম নেতা রুস্তম আলমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধারায় মামলা করলে পুলিশ ছুটে যান রাত বারোটা নাগাদ সেই গৃহবধূর বাড়িতে। 


যদিও সাংবাদিকরা পুলিশের সাথে ছুটে গিয়ে সেই গৃহবধূর জবানবন্দি নিয়ে আসে। ঘটনার বিবরণে জানা যায় কমলাসাগর বিধানসভার মধুপুর থানাধীন  কইয়াডেপা এলাকার ৭ নং ওয়ার্ডের ৪ নং বুথের দুই সন্তানের জননী গৃহবধূ সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ নিজ বাড়ি থেকে কিছু দূরে উনার একটি গরু খুঁজতে যান কিন্তু সেই সময়ে গরুটি না পেয়ে নিজ বাড়ীতে ফিরে আসার সময় অন্ধকারে সেই গৃহবধূকে জাপটে ধরে ঐ এলাকার সিপিএমের নেতা। 


সেই অভিযুক্ত রুস্তম আলম মহিলাকে অন্ধকারে জাপটে ধরে একটা সময় তার হাতে এবং পায়ে মুখের দাঁত দিয়ে কামড়ে ছিঁড়ে ফেলে শুধু তাই নয় তার শরীরের কাপড় ছিঁড়ে ফেলে মাথায় প্রচন্ড আঘাত করে পরবর্তী সময়ে মুখে চাপা দিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। কিন্তু সেই দুই সন্তানের জননী চিৎকার শুরু করলে এলাকার জনগণ ছুটে আসে, পরবর্তী সময়ে অভিযুক্ত রুস্তম আলম সেখান থেকে পালিয়ে যায়। এলাকার জনগণ সেই মহিলাকে উদ্ধার করে মধুপুর হাসপাতালে নিয়ে যান।  ঐ দিকে মধুপুর থানার পক্ষ থেকে পুলিশ সেই মামলা হাতে নিয়ে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করার উদ্দেশ্যে মাঠে নেমেছে। 


এখন দেখার বিষয় মধুপুর থানার পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে কিনা নাকি অন্য কয়েকটি মামলার মত তা চাপা পড়ে যায়। এদিকে জানা যায় রুস্তম আলম সি পি আই এম ক্ষমতা থাকাকালীন এলাকার মধ্যে বিভিন্ন পাচার বাণিজ্য, নেশা কারবার্‌ চোরাকারবারি এবং খুনের অভিযোগ রয়েছে। যদিও বাম আমলে সবগুলি পার পেয়ে যায় এখন দেখার বিষয় বর্তমান সরকারের আমলে এক মহিলাকে বলাৎকারের চেষ্টায়  পুলিশ কি ভূমিকা নেয় কিংবা গ্রেপ্তার করে কিনা সেদিকে তাকিয়ে আছে জনগণ যদিও সেই দুই সন্তানের জননীর পক্ষ থেকে কঠোর শাস্তির দাবি তুলেছে রুস্তম আলমের বিরুদ্ধে।

কোন মন্তব্য নেই