HeadLogo

দিনের পর দিন হাসপাতালের এক্সরে মেশিন বিকল, জেলা জুড়ে ক্ষোব - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
০৩ অক্টোবর ২০২০ 
শনিবার 

ধর্মনগর প্রতিনিধিঃ একে তো গোটা রাজ্যেই করোনা সংক্রামনের কারণে নাজেহাল সাধারন জনগন। তারিমধ্যে ধর্মনগর স্থিত জেলা হাসপাতালের বিভিন্ন পরিষেবা থেকে বঞ্চিত উত্তর জেলার মানুষজন। কিন্তু দপ্তরের এতটা হেলদোল নেই। সম্প্রতি প্রায় দু মাস যাবত ধর্মনগর জেলা হাসপাতালের এক্সরে মেশিন বিকল। ফলে জেলার বহু লোক সমস্যায় দিন কাটাচ্ছেন। এই বিষয়ে জানতে গেলে উত্তর জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডঃ অরুণাভ চক্রবর্তী জানিয়েছেন। যে সংস্থা  এক্সরে মেশিন ঠিক করেন তারা ঠিক করতে এসে দেখেছে মেশিনের একটি পার্স নষ্ট হয়েছে।


অর্ডার করা হয়েছে এবং পার্স এলেই মেশিন ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু আশ্চর্য বিষয় প্রায় দু মাস যাবত একটি পার্স আসছে না? এর ফলে জেলার গ্রাম পাহাড়ের দরিদ্র জনগন  যাদের অসুস্থ হলে একটাই ঠিকানা সরকারী হাসপাতাল। সেখানে এক্সরে মেশিন বিকল থাকায় তাদের আর্থিক দুর্দশা দেখা দিয়েছে। কেননা সরকারী হাসপাতালে যেখানে ৫০ টাকা  এবং বিপিএল দের জন্য আরো শস্তার সুযোগ রয়েছে সেখানে দপ্তরের হেলামীতে আর্থিক দুর্বল জনগনের মাথায় হাত। 


মেশিন নষ্ট থাকায় সাধারণ জনগনদের বেসরকারি এক্সরে সেন্টারে গিয়ে ৩০০ টাকা ৫০০টাকা ও ১০০০ টাকা দিয়ে এক্সরে করাতে হচ্ছে। এতে আর্থিক সমস্যা দেখা দিচ্ছে বহু দরিদ্র পরিবারের। গোটা উত্তর জেলায় একমাত্র ধর্মনগর হাসপাতালেই এক্সরের ব্যাবস্থা রয়েছে। 

ফলে কদমতলা চুড়াইবাড়ি পানিসাগর কাঞ্চনপুর সহ গোটা জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে জনগন জরুরি পরিষেবার জন্য হাসপাতালে এলে এক্সরে মেশিনটি নষ্ট থাকায় তাদের প্রচন্ড সমস্যায় পরতে হচ্ছে। 


এতে সরকারী পরিষেবার উপর আস্থা হারাচ্ছে জনগন। হাসপাতালে এক্সরের ইউনিট রয়েছে মেশিন রয়েছে টেকনিশিয়ান রয়েছে অথচ সামান্য একটা পার্সের জন্য প্রায় দু মাস যাবত জেলার লোকজন এক্সরে পরিষেবা থেকে বঞ্চিত। এও জানা গেছে এই দু মাস না আগেও বহুদিন এই এক্সরে মেশিনটি নষ্ট ছিল। এতে মানুষের উত্তরের স্বাস্থ্য দপ্তরের উপর দিন দিন  ক্ষোব বৃদ্ধি পাচ্ছে।


কোন মন্তব্য নেই