HeadLogo

কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতাল থেকে দিন দুপুরে দুঃসাহসিক বাইক চুরি - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
০৮ আগস্ট ২০২০
শনিবার 

কদমতলা প্রতিনিধিঃ উত্তর জেলার কদমতলা থানা থেকে একশো মিটার ভিতরে অবস্থিত কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতাল।প্রতিদিনের ন্যায় কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী আশীষ শব্দকর পিতা মৃত মনমোহন শব্দকর দুপুর ৩ টা নাগাদ হাসপাতালে ডিউটিতে যোগদান করেন। হাসপাতালের পাশের গ্রাম সরসপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আশীষ শব্দকর নিজ বাড়ি থেকে প্রতিদিন উনার নিজের বাইক দিয়ে কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতালে ডিউটিতে আসা-যাওয়া করতেন। আজও উনার TR/2892 নম্বরের লাল রঙের সুপার স্পেন্ডার বাইক নিয়ে ডিউটিতে এসে বাইকটি হাসপাতালের সামনে রেখে  কাজে লেগে পড়েন। 


হাতের কাজ সেরে প্রায় ১৫/২০ মিনিট পর হাসপাতালের সামনে এসে দেখতে পান উনার নিজের বাইকটি সেই স্থানে নেই। সাথে সাথে আশপাশ খোঁজাখুঁজি করে বাইকে না পেয়ে হাসপাতালের সকল সহকর্মীকে বিষয়টি জানান। পাশাপাশি বিষয়টি জানানো হয় কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতালের ইনচার্জ অরুনাভ চক্রবর্তীকে। তারপর হাসপাতালে সিসি ক্যামেরা ফুটেজে ধরা পড়ে বছর ত্রিশ এর এক যুবক আসিষ শব্দকর এর লাল রঙের সুপার স্প্লেন্ডার বাইকটি চালিয়ে হাসপাতালের ভেতর থেকে বেরিয়ে ধর্মনগর সড়ক দিকে চলে যাচ্ছে। 


যদিও সিসি ক্যামেরার ফুটেজ ওই যুবকের চেহারা স্পষ্টভাবে সনাক্ত করতে না গেলেও মোটামুটি শরীরের গঠন ও শরীরের কাপড় চোপড় আন্দাজ করা সম্ভব হয়েছে। তড়িঘড়ি বাইক মালিক আশিষ শব্দকর ও কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতালের ইনচার্জ অরুণাভ চক্রবর্তী পৃথকভাবে বাইক চুরির দুটি মামলা কদমতলা থানায় রুজু করেন। সাথে সিসি ক্যামেরা ফুটেজও কদমতলা থানার কাছে তুলে দেওয়া হয়। ফলে কদমতলা থানার পুলিশ তদন্তে নেমে সন্দেহভাজন তিন যুবককে আটক করে থানায় নিয়ে এসেছে। যদিও বর্তমানে ওই তিন যুবককে জিজ্ঞাসাবাদ চালিয়ে যাচ্ছে কদমতলা থানার পুলিশ। জানা গেছে সন্দেহভাজন তিন যুবকের ঘর কৈলাশহর, কদমতলা ও মনু ছৈলেংটায়। 


পুলিশ যদিও চুরির মামলা হাতে নিয়ে তদন্ত শুরু করে দিয়েছে কিন্তু দিনদুপুরে কদমতলা থানার নাকের ডগা অর্থাৎ থানা থেকে মাত্র একশো মিটার দূরত্বের ভিতরে থাকা ব্যস্ততম জায়গা কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতালের সামনে থেকে হাসপাতাল কর্মীর বাইক চুরি হওয়ায় জনমনে তীব্র আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। পাশাপাশি পুলিশ প্রশাসনের নিরাপত্তা ভূমিকা নিয়ম নানা মহলে প্রশ্নের উঁকি মারছে। এখন দেখার বিষয় কদমতলা থানার পুলিশ দিনদুপুরে বাইক চুরি কাণ্ডের মূল অভিযুক্তকে আটক করে চতুর্থ শ্রেণীর হাসপাতাল কর্মীর বাইক উদ্ধার করতে কতটুকু সক্ষম হয়।


কোন মন্তব্য নেই