বারুণী মেলার নামে প্রকাশ্যে জুয়ার আসর- Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
১২ এপ্রিল
সোমবার
পানিসাগর প্রতিনিধিঃ- পানিসাগর ব্লক এর সহায়তায় এবং মেলা কমিটির যৌথ প্রয়াসে উওর জেলার পানিসাগর মহকুমার অন্তর্গত পদ্মবিলে অনুষ্ঠিত হয় রাজ্যের ঐতিহ্যবাহি ৬৪ তম চার দিবসিয় দুগঙ্গা অম্বিকা কুন্ড বারুণী মেলা ও পূন্য স্নান।গতকাল ১০ এপ্রিল অধিবাসের মাধ্যমে এবং ১১ এপ্রিল প্রদিপ প্রজ্বালনের মাধ্যমে মেলার শুভ শুচনা করেন পানিসাগর বিধান সভার মাননীয় বিধায়ক বিনয় ভূষণ দাস মহাশয়।
প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্তিত ছিলেন উওর জেলার সভাধিপতি ভবতোষ দাস সহ অন্যান্য অথিতি বৃন্ধরা। অনুষ্টানের শুরুতে স্বাগত ভাষনের মাধ্যমে মেলার ইতি কথা পর্যালোচনা করেন মেলা কমিটির সভাপতি। মেলাটি রাজ্যের মধ্যে একটি ঐতিহ্যবাহি মেলার স্বীকৃতি অর্জন করে। বিগত ২০১০ সাল থেকে মেলাটিকে রাজ্য সরকার স্বীকৃতি দিয়েছে। এর পর থেকে উক্ত মেলাটি সরকারি আর্থিক সহায়তায় ক্রমান্বয়ে এক দিবসীয় থেকে বর্তমানে চার দিনে গিয়ে পৌঁছায়। মেলা কমিটির পক্ষথেকে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছে বর্তমানে কোভিড -১৯ সংক্রমণের দ্বিতীয় দফায় সরকারি জারি করা সকল প্রকার বিধি নিষেধ মেনেই মেলাটি পরিচালনা করছেন মেলা কতৃপক্ষ।
মেলাতে প্রবেশের ক্ষেএে প্রতিটি পুন্যার্থী যাতে মুখে মাক্স পরে মেলাতে প্রবেশ করেন তার জন্য সচেতনাতা মূলক ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। উক্ত মেলাতে রাজ্যের দুর দুরান্ত থেকে বিভিন্ন পসরা নিয়ে দোকান খোলে বসেছেন দোকানিরা। মেলাকে কেন্দ্র করে আনন্দ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। তবে মেলাতে পরিক্রমা কালীন সময়ে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের ক্যামেরায় উঠে আসে এক ভিন্ন চিএ। মেলাতে লটারির নামে চলছে অবৈধ ভাবে জুয়ার বানিজ্য। চড়কির মাধ্যমে সাবান দিয়ে গ্রামীন এলাকার সহজ সরল মানুষের পকেট কাটতে মরিয়া হয়ে উঠেছে এক দল অসাধু কারবারি। আন্ডার ওভারের মতো নিষিদ্ধ খেলা চলছে অবাধ গতিতে।
তবুও মেলা কতৃপক্ষের কোন হেলদুল নেই। আশ্চর্যের বিষয় হলো মেলা প্রাঙ্গণের সাথেই রয়েছে এসপিও ক্যাম্প তাদের ও কোন অদৃশ্য কারনে এই ধরনের দৃশ্য চোখে পড়েনি। অথচ উদ্বোধনী মঞ্চে আলোচনা ক্রমে বিধায়ক বার বার এই ধরনের অবৈধ কার্যকলাপ থেকে মেলাকে মুক্ত রাখতে আলোচনা করেন। মেলাতে উপস্থিত শুভবুদ্ধি সম্পন্ন পুন্যার্থীরা বিষয়টিকে সমালোচনার চোখেই দেখছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য

Close Menu