সুপারি বাগান কাটাকে কেন্দ্র করে দুটি সম্প্রদায়ের মধ্যে উওপ্ত উওর জেলার পদ্মবিল দুগাঙ্গা এলাকায়- Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
১৬ এপ্রিল
শুক্রবার
পানিসাগর প্রতিনিধি:- ঘটনার বিবরনে যানা যায় বিগত ১০ এপ্রিল ২০২১ ইং তারিখে সকালবেলা অন্যান্য দিনের মতো নিজ বাগানে কাজ করতে গিয়ে বাগান মালিক আব্দুল হামিদ, পিতা মৃত আসাব আলি দেখতে পায় বাগান সংলগ্ন ইন্দুরাইল তিন গরিয়া পাড়ার দুই নং ওয়ার্ডের বেশ কয়েকজন উপজাতি যুবক তাদের দেখে পালিয়ে যাচ্ছে । এদের পালিয়ে যেতে দেখে বাগান মালিকের সন্ধেহ হয় । একটু এগিয়ে যেতেই দেখেন ওদের প্রায় চল্লিশ বছরের পুরাতন সুপারি বাগানটিকে কেটে তছনছ করে পালিয়ে যায় ।
তবে পালানোর সময় সকলকে চিনতে না পারলেও পাঁচ জন অভিযুক্তকে চিনতে সক্ষম হয় । তৎক্ষনাৎ আব্দুল হামিদ বিষয়টি ওর বাকি ভাইদের জানান এবং অভিযুক্ত পাঁচ জনের বিরুদ্ধে মৌখিক ভাবে পানিসাগর থানায় অভিযোগ জানানো হয় । পরবর্তীতে পানিসাগর থানার পরামর্শ মতো অভিযুক্ত পাঁচ জনের বিরুদ্ধে ১১ এপ্রিল লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় । কিন্ত অভিযোগ দায়ের করার ৪৮ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও পানিসাগর থানার পুলিশ এখনো পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে তদন্ত পর্যন্ত করতে যায়নি ।
দক্ষিন পদ্মবিল এক নং ওয়ার্ডের বাগান মালিক আব্দুল হান্নান, আব্দুল হামিদ, আব্দুল কাদির এবং আব্দুল আজিজ জানান ওদের মৃত পিতা- আসব আলী এবং মা কুটিনা বিবির নামিয় যৌথ এলটি ৩৬ নং খতিয়ান ভুক্ত, সাবেক দাগ-৩০, হাল দাগ ২৫৮/৯৯৯ এর ১৩ কানি টিলা জায়গায় চার ভাই মিলে সুপারি, লেবু, আগর, কলা এবং আম কাঠালের বাগান লাগিয়ে দীর্ঘ প্রায় চল্লিশ বৎসর যাবৎ জীবন জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন । রাজ্যে এ,ডি,সি, গঠন হওয়ার পুর্বে এই জায়গা রাজ্য সরকার কতৃক এলটম্যেন্ট প্রদান করা হয় । অথচ এদের দখল কৃত জায়গায় বিগত ৯ এবং ১০ ফেব্রুয়ারি রাতের আঁধারে ড্রজার দিয়ে মাটি কেটে বাদ দিয়ে ফিসারী বানিয়ে নেয় সরৎ মনি হালাম । এই নিয়ে পরদিন পানিসাগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পানিসাগর থানার পুলিশ, পঞ্চায়েত সচিব, জিআরএস এবং তহশিলদারদের উপস্থিতিতে পানিসাগর মহকুমা শাসকের নির্দেশে বিগত ২৩/০২/২১ তারিখে জমি জরিপ করে সরৎমনির কে দিয়ে অবৈধ বাদ ভাঙ্গিয়ে পুনরায় আব্দুল হামিদকে হস্তান্তর করা হয়।
রাজ্যে এিপ্রা মথা প্রতিষ্ঠিত হলে তিনগড়িয়া এডিসি এলাকা থেকে তাদের বিতারিত করবে বলে হুমকির অভিযোগ করেন বাগান মালিক কতৃপক্ষ । জানা গেছে ইন্দুরাইল পন্চায়েত সচিব শীতেন্দ্র চন্দ্র দাস এবং জিআরএস সুজিত দাস কৌশল করে আন্তার লাল হালামের নামে মোট চার লক্ষ ষোল হাজার টাকার রেগা প্রকল্পে ওয়ার্ক অর্ডারের পুকুর খননের কাজটি কৌশল করে আব্দুল হামিদের জায়গায় জিও ট্রেকিং করিয়ে ড্রজার দিয়ে মাটি কেটে বাদ তৈরি করে লক্ষ লক্ষ টাকা আফিজ করে নেওয়ার অভিযোগ উটেছে । প্রতিহিংসার আগুনে অন্ধ হয়ে সরৎমনি হালাম দলবল সমেত এডিসি নির্বাচনের ফল ঘোষণার দিন সকালে আব্দুল হামিদ দের প্রায় সাত হাজার ছোট বড় মুল্যবান সুপারি গাছ সহ অন্যান্য গাছ কেটে নাশকতা চালায় । এই বাগান থেকে প্রতি বছর প্রায় লক্ষাধিক টাকার সুপারি বিক্রি করে চার ভাই জীবন জীবিকা নির্বাহ করে । এদের মোট ক্ষতির পরিমাণ প্রায় দশ লক্ষ্যাদিক টাকা হবে বলে জানা গেছে । এই নিয়ে গোটা পদ্মবিল এবং ইন্দুরাইল এলাকা জোড়ে  ক্ষোভ বিরাজ করছে ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য

Close Menu