Ad Code

Responsive Advertisement

গাঁজা গাছ ধ্বংস করতে গিয়ে পুলিশ ও উত্তেজিত জনতার সংঘর্ষ - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা 
১৮ ডিসেম্বর ২০২০  
শুক্রবার

বক্সনগর প্রতিনিধিঃ পুলিশকে লক্ষ্য করে উত্তেজিত জনতার ইট-পাটকেল ও বোমা নিক্ষেপ,পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ এর পক্ষ থেকেও কাদানি গ্যাস নিক্ষেপ,ঘটনা সোনামুড়া থানাধীন কমলনগর, ঘাঁটিঘর,বিজয় নগরের মাঝামাঝি এই ৩টি এলাকায়।ঘটনার বিবরণে জানা যায় শুক্রবার সকাল ১০ঘটিকার সময় কমলনগর ঘাঁটিঘর এলাকায় পুলিশ ও বিএসএফ, টি এস আর, নারকেটিস, বক্সনগর বনদপ্তরের যৌথ অভিযান চালিয়ে প্রচুর গাঁজা গাছ ধ্বংস করা হয়। একসময় পুলিশ ঘাঁটিগড় এলাকার গাঁজা গাছ ধ্বংস করতে করতে যখন বিজয় নগর এলাকায় গাঁজা গাছ ধ্বংস করতে যান। তখন গাঁজা চাষীরা উত্তেজিত হয়ে যান। 


বিজয়নগর ও ঘাঁটিঘর এলাকার মাঝখানে ছিল বিজয় নদী নামে একটি ছড়া। ঐ বিজয় নদীর ছড়ার ওপারে ছিল প্রচুর গাঁজা গাছ। যা বিজয় নগর এলাকার উপজাতি  জনজাতিরা এই এলাকায় গাঁজা চাষ করে থাকেন। পুলিশ ঘাঁটিগড় এলাকার গাঁজা খাস ধ্বংস করার পর যখন বিজয় নগর এলাকার গাঁজা গাছ কাটতে নদী পার হয়ে ঐ পারে যান আর তখনই উত্তেজিত জনতারা পুলিশকে লক্ষ্য করে অজস্র ভাষায় গালাগালি, চিৎকার করতে থাকেন এবং ইট-পাটকেল ও গোলাল ছুঁড়তে শুরু করেন। একসময় গাঁজা চাষিরা বোমাও নিক্ষেপ করেন। 


পরবর্তী সময়ে উত্তেজিত জনতার এই ঘটনার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ছয়টি কাদানি গ্যাস তাদের উদ্দেশ্যে গ্রামে নিক্ষেপ করেন। এই কাদানি গ্যাসের বিকট শব্দে পুরো এলাকা স্তব্ধ হয়ে যায়। কিন্তু পুলিশ হাল ছাড়েন নি। যখন ঘটনার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে, তারপরেও প্রায় ২০,০০০ গাঁজা গাছ ধ্বংস করেন পুলিশ। জানা যায় ঐ দিনের অভিযানে মোট ২০ প্লট এ প্রায় ১ লক্ষ ২০ হাজার গাঁজা গাছ ধ্বংস করা হয়। যার বাজারজাত মূল্য কয়েক লক্ষাধিক টাকা। 


এই দিনের অভিযানে ছিলেন সোনামুড়া মহকুমা পুলিশ আধিকারিক বনোজ বিপ্লব দাস,  সোনামুড়া থানার ওসি, ৭ ব্যাটেলিয়ান টিএসআর জোয়ান, ৭৪ নং ব্যাটালিয়ানের বিএসএফ, নারকটিকস এর এসপি সরস্বতী আর্থ তাছাড়া বক্সনগর বন দপ্তরের কর্মীরা। তাছাড়া দেখা যায় গাঁজার গাছ ধ্বংস করার সাথেসাথে উত্তেজিত জনতা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তবে পুলিশের দুঃসাহসিকতা বিশেষভাবে লক্ষ্য করা গেছে, বিশেষ করে সোনামুড়া মহাকুমা পুলিশ কর্তৃক এই ঘটনার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বিশেষ ভূমিকা পালন করতে দেখা যায়। তবে তিনি জানান এই ধরনের অভিযান আগামী দিনেও জারি থাকবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য

Close Menu