HeadLogo

ফিটনেস ও ইন্সিওরেন্স বিহীন লরির ছোটাছুটি রাস্তায় , পরিবহন ও ট্রাফিক দপ্তরের ভূমিকায় সন্দেহ - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
০৩ নভেম্বর ২০২০  
মঙ্গলবার          

ধর্মনগর প্রতিনিধিঃ ধর্মনগরের রাস্তায় ফিটনেস ও ইন্সিওরেন্স বিহীন লরির ছড়াছড়ি। কিন্তু অন্ধধৃতরাষ্ট্রের ভূমিকায় পরিবহন দপ্তর। সাথে ট্রাফিক দপ্তর কুম্ভকর্ণ ভূমিকায়।কিন্তু এই দুই দপ্তরেই খামখেয়ালি কিংবা অনৈতিকতার কারণে ছন্নছাড়া হয়ে পরতে পারে বহু পরিবার। বিগত একটা সময় ছিল ধর্মনগর শহরে লরি ও বাইকের কাগজ পরীক্ষার জন্য এমবিআই অথবা ট্রাফিক বাবুদের দেখা যেত। কিন্তু বর্তমানে দপ্তরের পোশাক পড়া কর্মীদের চোখে দেখা গেলেও কাজে তেমন দেখা যায় না। নো পার্কিং এর কথা তো আর বলে লাভ নেই। যে কোন সময়  শহরের যে কোন জনবহুল স্থানেই যেকোন গাড়ি পার্কিং অবস্থায় দেখা যায়। 


ফলে শহরের কোন রাস্তাটি পার্কিং জোন এবং কোনটি নো পার্কিং জোন তা বলা মুশকিল।কিন্তু ট্রাফিক দপ্তর দিব্যি ঘোরাঘুরিতে ব্যস্ত। তাদের এই ঘোরাঘুরিতেই পকেট নাকি বেশ ফুলেফেঁপে উঠে এমন অভিযোগও রয়েছে। তবে সবচাইতে ভয়ঙ্কর বিষয় হলো। বর্তমানে  প্রতিনিয়ত রেল যোগে রাজ্যে যে সব সরকারী ও বেসরকারী খাদ্য সামগ্রী আসছে সে গুলো যে সকল লরি দিয়ে বহন করা হচ্ছে তার অধিকাংশ লরির নেই ফিটনেস নেই ইনসিওরেন্স। ফলে এই লরি গুলো দিয়ে যদি রাস্তায় কোন দুর্ঘটনা ঘটে তবে সমস্যায় পরবে দুর্ঘটনায় আহত কিংবা নিহত ব্যাক্তি ও তার পরিবার। 


কিন্তু আশ্চর্যজনক বিষয় ট্রাফিক দপ্তর ও পরিবহন দপ্তর দায়হীন ভূমিকায়। এদিকে ধর্মনগর স্থিত কেন্দ্রীয় খাদ্য গুদাম ও রাজ্য খাদ্য গুদাম থেকে রেশন সোপ সহ বিভিন্ন সরকারী খাদ্য সামগ্রী গুলোও অধিকাংশ কাগজ পত্র বিহীন ট্রাকেই বহন করে নিয়ে যাওয়া হয়। অর্থাৎ এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের ও উদাসীনতা রয়েছে। তবে জানা গেছে বিগত কিছু দিন পূর্বে রাজ্য খাদ্য গুদামের এক আধিকারিক সঠিক কাগজ বিহীন লরিতে সরকারী সামগ্রী লোড না দেওয়ার হুলিয়া জারি করার কিছু দিনের মধ্যেই তাকে ধর্মনগর খাদ্য গুদাম থেকে ট্রান্সফার করে দেওয়া হয়। 


ফলে সন্দেহ ঘনীভূত হয় যে এই ভাবে দিনের পর দিন সঠিক কাগজপত্র হীন লরি দিয়ে খাদ্য সামগ্রী বহনের ক্ষেত্রেকি তবে একটি দুষ্টু চক্র কাজ করছে? বলা বাহুল্য এ ভাবে বছরের পর বছর ফিটনেস ও ইন্সিওরেন্সের মেয়াদ না বাড়িয়ে লরি নিয়ে  ব্যবসা করায় রাজ্য সরকার একটা বিশাল অঙ্কের রাজস্ব থেকেও বঞ্চিত হচ্ছে। অথচ সংশ্লিষ্ট দপ্তর গুলো চুপ।

কোন মন্তব্য নেই