HeadLogo

দুই পরিবারের মারপিটের প্রধান অভিযুক্ত দীর্ঘদিন পর আটক পুলিশের জালে - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
১১ নভেম্বর ২০২০  
বুধবার          

চুরাইবাড়ি প্রতিনিধিঃ দুই পরিবারের মারপিটের প্রধান অভিযুক্ত পুলিশের জালে। ধৃত যুবক সোহেল আহমেদ (২৯)। ধৃত যুবককে আজ আদালতে প্রেরণ করেছে কদমতলা থানার পুলিশ। ঘটনার বিবরণে প্রকাশ,গত ২১ সেপ্টেম্বর চুড়াইবাড়ি থানা এলাকার অধীন ফুলবাড়ি মুকাম বাজারের ২ নং ওয়ার্ড এলাকায় দুই পরিবারের মধ্যে মারপিট সংঘটিত হয়। তাতে উভয়পক্ষের প্রায় ৯ জন গুরুতর আহত হন।আহত অবস্থায় থাকা সকলকে প্রেমতলা দমকল কর্মীরা ঘটনাস্থল থেকে কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে আসেন। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান কদমতলা ও চুড়াইবাড়ি থানার পুলিশ। এদিকে হাসপাতালের চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা করে ৭ জনের অবস্থা গুরুতর দেখে ধর্মনগর জেলা হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।অপর দুজনকে কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হয়। 

পরবর্তী সময়ে উভয়পক্ষের ৯ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন। জানা যায়, চুরাইবাড়ি থানাধীন ফুলবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের ৬ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ছায়াদ আলী গত সেপ্টেম্ব মাসের মাঝামাঝি চুরাইবাড়ি থানায় নিজ ছেলের নিখোঁজ ডায়েরি করেন। আর নিখোঁজ ডায়েরিতে উল্লেখ করেন ইচাইলালছড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা তাজ উদ্দীন বাড়ি থেকে তার ছেলে সোয়েল আহমেদকে ডেকে নিয়ে যায়। তারপর থেকে ছেলে সোয়েল নিখোঁজ। অপরদিকে ইচাইলালছড়া ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা তাজ উদ্দিন কদমতলা থানায় একটি চুরির মামলা দায়ের করেন। 


চুরির মামলায় উল্লেখ করেন, ফুলবাড়ি এলাকার তাহিম উদ্দীন, আসুক উদ্দিন ও আফতাব আলীর বিরুদ্ধে। এমর্মে কদমতলায় থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়। পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে সোহেল আহমেদ কোনভাবে নিখোঁজ হয়নি। দুই পরিবারের পারিবারিক বিভাদ নিয়ে ঘটনাটি এভাবে রঙিন করা হয়েছিল। অবশেষে দুই পরিবারের মারপিটের প্রধান অভিযুক্ত অর্থাৎ নিখোঁজ বলে পরিবারের দাবি করা যুবক সোহেল আহমেদ (২৯) পিতা ছায়াদ আলীকে জালে তুলতে সক্ষম হয় পুলিশ। 


কদমতলা থানার ওসি কৃষ্ণধন সরকার জানান, দীর্ঘদিন থেকে এই মামলা প্রধান অভিযুক্ত সোহেল আহমেদ পালিয়ে বেড়াচ্ছিলো। অবশেষে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল চুরাইবারি এলাকা থেকে চুড়াইবাড়ি থানার সহযোগিতায় কদমতলা থানার পুলিশ সোহেলকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।ওসি আরো জানান, অভিযুক্ত সোহেল আহমেদের বাড়ি চুড়াইবাড়ি থানাধীন দক্ষিণ ফুলবাড়ি এলাকায়। আজ অভিযুক্তকে ধর্মনগর জেলা আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও জানান ওসি কৃষ্ণধন সরকার।

কোন মন্তব্য নেই