HeadLogo

বানরের কামড়ে মৃত্যু হল দরিদ্র পরিবারের ১৫ বছরের নাবালিকা পিংকি দাসের - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
০৯ নভেম্বর ২০২০  
সোমবার          

বক্সনগর প্রতিনিধিঃ চরিলাম আর ডি ব্লকের অন্তর্গত আরালিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের উত্তর মুড়া এলাকার হত দরিদ্র সোমা দাস এর পরিবার। সোমা দাস বিড়ি বাঁধার কাজ করে সংসার প্রতিপালন করেন মানসিক ভারসাম্যহীন স্বামী প্রমোদ দাস এবং দুই মেয়ে এক ছেলেকে নিয়ে। বড় মেয়েকে বিবাহ দিয়েছেন সোমা দাস। কিন্তু ছোট মেয়ে পিংকি দাস আড়ালিয়া স্কুলে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন। এরপর সংসারের হাল ফেরাতে মাকে সাহায্য করার জন্য মায়ের সাথে কাজ করতেন। 

বিগত কিছুদিন পূর্বে নিজ বাড়িতে ঢোকার প্রবেশদ্বার এ একটি বানর কামড়ে দেয় পিংকির হাতে-পায়ে। টাকার অভাবে চিকিৎসা করতে পারেননি সোমা দাস এমনটাই জানিয়েছেন পিংকির মা এবং এলাকাবাসী। বানরের কামড় দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভ্যাকসিন না নেওয়ার ফলেই প্রায় সময়ই পিংকি দাসের শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ গুলি বাঁকা হয়ে যেত। শেষ পর্যন্ত পিংকি দাস কে গতকাল আইজিএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। 


গতকাল সন্ধ্যাবেলায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে পিংকি দাস। বানরের কামড় দেওয়ার ফলে ই পিংকির শরীরে ধনুষ্টংকার এর মতন হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত চিকিৎসকদের সমস্ত প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়ে না ফেরার দেশে চলে যান পিংকি। পিংকির মৃত্যুতে গোটা গ্রাম বাকরুদ্ধ। বনদপ্তরের উপর প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ এলাকার মানুষজন। 


কারণ প্রতিনিয়ত বানরের উৎপাতে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। আরালিয়া গ্রাম উত্তর চরিলাম গ্রাম এবং দক্ষিণ চরিলাম গ্রামেও বানরের উৎপাত অস্বাভাবিক ভাবে বেড়েছে। বনদপ্তর কে অনেকবার বলা হয়েছে। কিন্তু দপ্তর কোন ভূমিকা নিচ্ছে না বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

কোন মন্তব্য নেই