HeadLogo

বানরের আতঙ্কে দিশেহারা চরিলাম রেল ব্রিজ সংলগ্ন এলাকা - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
১২ নভেম্বর ২০২০  
বৃহস্পতিবার       

বিশালগড় প্রতিনিধিঃ বানর আতঙ্কে দিশেহারা দক্ষিণ চরিলাম রেল ব্রিজ সংলগ্ন এলাকা। বুধবার রাত্রি ৭ ঘটিকায় বাড়ির উঠোনে এসে একটি পাগলা বানর কামড়ে দেয় আড়াই বছরের শিশু আশীষ সরকার কে, আশীষ উঠোনে খেলা করছিল। আশীষের মা ঘরে কাজ করছিল। হঠাৎ করে বানরটি রেল ব্রিজ থেকে দৌড়ে এসে আশীষ কে কামড়াতে থাকে।আশীষে চিৎকারে বাড়ির সবাই দৌড়ে আসলে বানরটি আশীষ কে ফেলে রেখে চলে যায়। একই সময়ে রেল ব্রিজ থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে সুকান্ত দাসের চার বছরের ছেলে অনির্বাণ দাস কেও এই পাগলা বানরটি চোখে হাতে-পায়ে কামড়ে দেয়। 


অল্পেতে রক্ষা পায় অনির্বাণের চোখটি। চোখ দিয়ে রক্ত ঝরতে থাকে ফিনকি দিয়ে। অনির্বাণের বাড়ির লোকজন দেখে পালিয়ে যায় বানরটি। এলাকাবাসী জানিয়েছে এখন পর্যন্ত এই পাগলা বানরটি ১০ থেকে ১৫ জন শিশুকে কামড়ে দিয়েছে। বহুবার বনদপ্তর কে জানানো হয়েছে।কিন্তু সিপাহীজলা ফরেস্ট রেঞ্জ অফিস কোন ভূমিকা নিচ্ছে না বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন। আজকে এই ঘটনায় এলাকাবাসী প্রচন্ড ক্ষুব্ধ হয়েছেন বনদপ্তরের উপর। তারা জানিয়েছেন আগামী দিনে যদি বনদপ্তর এই পাগলা বানরটিকে আটক করে সিপাহীজলা নিয়েনা যায় তাহলে এলাকাবাসী সংঘবদ্ধভাবে চরিলাম ফরেস্ট রেঞ্জ অফিস এবং ডি ফ ও অফিস ঘেরাও করবে। 


এই পাগলা বানরটি শুধুমাত্র শিশুদেরকে টার্গেট করে কামড়াচ্ছে। এখন দক্ষিণ চরিলাম এলাকায় এই পাগলা বানরের আতঙ্কে গোটা গ্রামের মানুষ। ছোট ছোট শিশুরা বড়দের সঙ্গে রেল ব্রিজ দিয়ে যাওয়ার সময়ে হঠাৎ করে কোথা থেকে বানরটি দৌড়ে এসে জাপটে ধরে শিশুদের কামড়ে দেয়। অভিভাবকরা টেরও পায় না। কিছুদিন পূর্বে আড়ালিয়া গ্রামে পিংকি দাস নামে এক নাবালিকার বানরের কামড়ের ফলে মৃত্যু হয়েছে। এরপরেও টনক নড়েনি বনদপ্তর এর। দিন দিন এই পাগলা বানরটির উৎপাতে অতিষ্ঠ গ্রামের মানুষ। আজকে দুটি শিশুকে কামড়ানোর ফলে গ্রামের মানুষের মধ্যে প্রচন্ড ক্ষোভ দেখা দেয়। গ্রামের মানুষ সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুই-একদিনের মধ্যেই তারা এস ডি এফ ও এবং ডি এফ ও অনিমেষ দাস এর সঙ্গে মিলিত হবে। 


এই পাগলা বানরটিকে যাতে লোকালয় থেকে সিপাহীজলা বন এ নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয় সেই ব্যবস্থা করার জন্য তারা বন দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন গ্রামের মানুষ। এই পাগলা বানরটির কামড়ের ফলে প্রচন্ডভাবে চিৎকার করছে আড়াই বছরের আশীষ সরকার এবং চার বছরের অনির্বাণ দাস। তাদেরকে বুধবার রাত্রিবেলায় বিশ্রামগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়। বানরের উৎপাতে অতিষ্ঠ গ্রামের মানুষ। 

কোন মন্তব্য নেই