HeadLogo

সোনামুড়া থানা, ৭৪ নং ব্যাটালিয়ন ও বন দপ্তরের অভিযানে প্রায় ৫০ হাজার গাঁজা গাছ ধ্বংস - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
১৫ অক্টোবর ২০২০ 
বৃহস্পতিবার  

বক্সনগর প্রতিনিধিঃ রাজ্যের পালাবদল হলেও গাঁজার রমরমা চাষে কোন পরিবর্তন হয়নি। বাম আমলে বক্সনগর বিধানসভা কেন্দ্র ছিল গাঁজা উন্মুক্ত করিডর এবং সরকার বদল এর পরেও কিন্তু গাঁজার রমরমা কারবার জারি রয়েছে। সোনামুড়া মহকুমার বিভিন্ন জায়গায় অবাধে চলছে গাঁজা চাষ ও গাঁজা কারবার। প্রতিনিয়ত সোনামুড়া ও বক্সনগর দিয়ে পাচারকারীরা গাড়ি বোঝাই করে গাঁজা সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে পাচার করে যাচ্ছে। তাছাড়াও শুকনো গাঁজা ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে পাচার হচ্ছে। 


বুধবার সকাল থেকে দুপুর ২ ঘটিকা পর্যন্ত সোনামুড়া থানার পুলিশ, ৭৪ নং ব্যাটালিয়ন এর বিএসএফ জওয়ান সহ বক্সনগর বন দপ্তরের কর্মীরা সোনামুড়া থানাধীন বাতাদোলা এলাকায় অভিযান চালায়। অভিযানে প্রায় ২০ হেক্টর জায়গায় ৫০ হাজার গাঁজা গাছ ধ্বংস করতে সক্ষম হয় এবং দশটি গাঁজা বাগান ধ্বংস করেছে বলে জানান উনারা।  যার বাজারজাত মূল্য প্রায় ২০ লক্ষ টাকা।


এই অভিযানে ছিলেন সোনামুড়া থানার ওসি পার্থ নাথ ভৌমিক ও ৭৪ নং ব্যাটেলিয়ান এর অ্যাসিস্ট্যান্ট কমান্ডেন্ট অশোক কুমার সিং সহ বক্সনগর বন দপ্তরের কর্মীরা। অভিযান শেষে পুলিশ ও বিএসএফ জানান রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন সরকার পরিবর্তনের পর ত্রিপুরাকে নেশামুক্ত গড়ে তুলবে, উনার উদ্দেশ্যেই সোনামুড়া মহকুমার প্রত্যেকটি গাঁজা বাগান ধ্বংস করতে প্রচেষ্টা চালাচ্ছে প্রশাসন। 


এককথায় ত্রিপুরার সোনামুড়া মহকুমায় চলছে রমরমা গাঁজা চাষ। এর মধ্যে গাঁজার করিডর হিসেবে পরিচিত কমলনগর, বাতাদোলা, দক্ষিণ কলমচৌড়া, উত্তর কলমচৌড়া, বাগবের, মানিক্যনগর ,নয়নজলা, সহ রহিমপুর এলাকায়। একসময় ত্রিপুরার অন্যতম করিডর হিসাবে পরিচিত অর্থাৎ গাঁজার মৃগয়াক্ষেত্র হিসেবে পরিচিত ছিল বক্সনগর এলাকা।

কোন মন্তব্য নেই