HeadLogo

একই দিনে দুটি পৃথক পৃথক জায়গায় ফাঁসিতে আত্মহত্যা - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমবার

কাঞ্চনপুর প্রতিনিধিঃ মহকুমার অন্তর্গত কাঞ্চনপুর থানা দিন দুটি পৃথক পৃথক জায়গায় দুই ব্যক্তি ফাঁসিতে আত্মহত্যা করেন। প্রথমে ফাঁসিতে আত্মহত্যা করার ঘটনা ঘটে কাঞ্চনপুর থানাধীন সাতনালা বাজার সংলগ্ন এলাকায়। মৃত ব্যক্তির নাম  অনাথ কুমার দাস বাড়ি কাঞ্চনপুর থানাধীন সাতনালা বাজার।  পেশায় উনি কাঠমিস্ত্রির কাজ করতেন এবং সাতনালা বাজারে দোকানও ছিল। নিজ দোকান ঘরের পাশের ঘরে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। এলাকাবাসীদের তরফ থেকে খবর দেওয়া হয় কাঞ্চনপুর থানায় কাঞ্চনপুর থানা থেকে ছুটে যান এসআই সুভাগ্য চাকমা সহ বিশাল পুলিশবাহিনী উনাদের উপস্থিতিতে বডি নামিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য কাঞ্চনপুর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। 


এলাকাবাসীরা জানান সকালবেলা উনাকে প্রাতঃভ্রমণ করতে দেখা যায় বাজার এলাকায়। হঠাৎ করে তিনি নিজে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন শুনে  এলাকাবাসী বিশ্বাস করতে পারছেন না। বাজার এলাকাবাসীদের বক্তব্য হঠাৎ কি কারণে তিনি নিজ ঘরে গিয়েই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করলেন।  উনারা পুলিশের কাছে দাবি জানান পুলিশ যাতে গোঠা ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করেন। অপর আত্মহত্যার ঘটনাটি ঘটে কাঞ্চনপুর থানা দিন শ্রীরামপুর মসজিদের পিছনের এলাকায়।  


জানা যায়  শ্রীরামপুর এলাকার বাসিন্দা এরশাদ আলী নিজ বাড়ির খেড়ের ঘরে গলায় গামছা দিয়ে ফাঁসিতে আত্মহত্যা করেন। উনি পেশায় একজন সবজি ব্যবসায়ী ছিলেন এবং কৃষি কাজ করতেন। 

বাড়ির লোকজন সকালবেলা দৃশ্য প্রত্যক্ষ করে সঙ্গে সঙ্গে খবর দেয় কাঞ্চনপুর থানায়।এই ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান কাঞ্চনপুর থানা থেকে এস আই রাজেশ ভট্টাচার্যী সহ বিশাল পুলিশবাহিনী। 


উনাদের উপস্থিতিতে মৃত বডি  নামিয়ে নিয়ে আসা হয় কাঞ্চনপুর হাসপাতালের মর্গে। ময়নাতদন্তের পর বডি গুলি আত্মীয়-পরিজনদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পুলিশের প্রাথমিক ধারণা উনারা নিজে নিজেই আত্মহত্যা  করেছেন। তবে পুলিশ প্রশাসন গোটা ঘটনা তদন্ত করে দেখছে। এখন দেখা যাক পুলিশি তদন্তে কি বেরিয়ে আসে।


কোন মন্তব্য নেই