জরিমানার নামে দরিদ্র আনারস ব্যবসায়ীর উপর চড়াও - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
০৭ অগাস্ট ২০২০
শুক্রবার 

ধর্মনগর প্রতিনিধিঃ করোনা মহামারীর প্রভাবে সংকটময় পরিস্থিতি গোটা দেশে। সরকার ঘোষিত লকডাউনের কারনে দেশের অর্থনীতি তলানিতে এবং এই লকডাউনের ফলে দারুণ ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ ছোট-মাঝারি ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে কৃষকদ্বয়। ফলে কৃষকরা তার উৎপাদিত ফসলের নায্য দাম পাচ্ছে না এবং ছোট ব্যবসায়ীরা মহাজনের টাকা সোধ করতে পারছেন না। এরিমধ্যে প্রশাসনের একাংশ কর্তাব্যক্তিরা সরকারি খাতায় নিজের দক্ষতা প্রমাণ করতেই কঠোর ভাবে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বিভিন্ন অভিযোগে জরিমানা আদায় করছেন।


বর্তমানে রাজ্যের কিছু কিছু  জায়গায় সাধারণ ব্যবসায়ীরা এর প্রতিবাদ জানিয়েছেন। কিন্তু  তারপরও প্রশাসনের কিছু অমানবিক অফিসার কঠোর হয়ে জরিমানার জন্য ঘাড়চেপে ধরছেন হত দরিদ্র পথের ধারের ব্যবসায়ীদের। যাদের নুন আনতে পান্তা ফুরায় তাদের কাছ থেকে অনাদায়ে জরিমানা। এ কেমন প্রশাসন ? ঘটনা বুধবার রাতে ধর্মনগর সেন্ট্রাল রোড স্থিত কংগ্রেস ভবনের সম্মুখে। ধর্মনগর সেন্ট্রাল রোডের ধারে প্রতি বছর আনারসের মরসুমে কিছু দরিদ্র ব্যবসায়ীগন আনারস বিক্রি করেন। এবারো তারা সংশ্লিষ্ট রাস্তার ধারে বসেই আনারস বিক্রি করে চলেছেন। 


তবে বুধবার রাত আটটা নাগাদ আচমকা ধর্মনগর থানার এসআই রঞ্জিত দেববর্মার নেতৃত্বে  পুলিশ বাহিনী কংগ্রেস ভবনে সম্মুখের একটি আনারসের দোকানে সামনে এসে দোকানির উপর চড়াও হন। প্রথমে দারোগাবাবু জিগ্যেস করেন এতো রাতে দোকান খোলা কেন।কিন্তু সরকারি নির্দেশ মোতাবেক কাঁচা ফলের দোকান অত্যাবশ্যকীয় দ্রব্যাদের আওতায় রয়েছে। তথাপি প্রত্যুত্তরে দোকানদার জানান কিছু সময়ের মধ্যেই দোকান লাগিয়ে দেবেন। পরক্ষণেই দারোগা বাবু এই দোকানদার সহ পাশের আনারস দোকানিকেও মাস্ক না থাকার অজুহাতে মোট ৪০০ টাকা জরিমানা দেওয়ার কথা বলে ধমকাতে থাকেন। দুই আনারস ব্যবসায়ী করুণ আবেদনে দারোগা বাবুকে জানান বর্তমানে লকডাউনের জেরে তাদের ব্যবসায় ক্ষতির উপর দাড়িয়েছে। এঅবস্থা এই জরিমানা দেওয়া তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। পাশাপাশি তারা আরো জানান সারাদিনই তারা মাস্ক ব্যবহার করেছেন।কিন্তু এখন কোন ক্রেতা নেই তাই বাড়ি ফেরার সময় তারা খানিকের জন্যই মাস্ক খুলে ছিলেন। কিন্তু দারোগা বাবু তা মানতে নারাজ। 


ব্যবসায়ীদের করুন আবেদনেও দারোগা বাবু জরিমানার জন্য নাছোড়বান্দা। এদিকে দীর্ঘ সময় ধরে আশেপাশের অনান্য ব্যবসায়ী ও পথচারীরা এই দৃশ্য দেখতে দেখতে এগিয়ে আসেন। একত্রিত জনগন আঙুল তুলে দেখিয়ে দেন দারোগা বাবুর একটু ধারে থাকা একাধিক পুলিশ কর্মীরাই বিনামাস্কে ডিউটেতে রয়েছেন। আনারস ব্যবসায়ীদের ব্যবসার আর্থিক মন্দার কথা বার বার পুলিশের সামনে কাকুতিমিনতি ভরে আবেদন করার পরেও দারোগাসহ পুলিশ কর্মীদের চাপের বিষয়েও প্রত্যক্ষদর্শীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে পরিস্থিতি একটু উত্তপ্ত হলে দারোগাবাবু তার পুলিশ বাহিনী নিয়ে কেটে পরেন। একে তো লকডাউনে সবার ব্যবসায় চলছে চরম ঘাটতি তারি মধ্যে যদি জরিমানার নামে প্রশাসনের এমন জুলুমবাজি চলতে থাকে তবে তো ছোট-মাঝারি ব্যবসায়ীদের বাঁচা দায় হয়ে পরবে।


 
Attachments area

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য

Close Menu