HeadLogo

বেপরোয়া জনগন, শক্ত হাতে প্রশাসন - Sabuj Tripura News


সবুজ ত্রিপুরা
৩১ জুলাই ২০২০
শুক্রবার



ধর্মনগর প্রতিনিধিঃ বৃহস্পতিবার রাজ্যের লকডাউন শেষ হওয়ার কথা থাকলেও শেষ আর হলোনা।রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী বুধবার রাতে ঘোষণা করলেন আগামী ৪ঠা আগস্ট সকাল ৫ টা পর্যন্ত রাজ্যে সম্পূর্ণ লকডাউন থাকবে।



এদিকে বৃহস্পতিবার সকাল হতেই ধর্মনগরের অন্য রকম চিত্র নজরে এলো। মোটামুটি ভোরের আলো ফুটতেই ধর্মনগর বাজারে উপচে পরলো ক্রেতা সাধারণের ভিড়। সামাজিক দূরত্ব আর মাস্কের ছিলনা কোন বালাই। যে যেভাবেই পারে ব্যাক্তিগত কাছজে ছুটতে ব্যাস্ত । মাছ, মাংস ,সবজি কিংবা মুদির দোকান সর্বত্রই ক্রেতাদের ভিড়। দেখলে বোঝাই যায় না ধর্মনগরে লকডাউন চলছে। 



শুধু ধর্মনগর মূল বাজারে নয় আশেপাশের অধিকাংশ বাজারের চিত্রটা প্রায় একি রকম ছিল। অপরদিকে বৃহস্পতিবার সাত সকাল থেকেই অনান্য স্বাভাবিক দিনের মতোই শহরের রাস্তায় বাইক অটো ই-রিক্সার দাপাদাপি শুরু হয়ে যায়। দোকানপাটে ক্রেতা সমাগম ও মটরযানের বেপরোয়া চলাচল দেখে সকাল ১১ টায় নাগাদ ধর্মনগরের ট্রাফিক দপ্তর ও আরক্ষাদপ্তরের কর্মীরা লকডাউনের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মাঠে নামে। শুরু হয় শহরের চারিদিকে টহলদারি। 



ধর্মনগর পুরাতন মটর স্ট্যান্ড এলাকায় ট্রাফিক দপ্তর ও আরক্ষা দপ্তরের যৌথ প্রয়াসে প্রায় ৫০ টি ই-রিক্সা আটক করা হয় । আটক কৃত ই-রিক্সা দের লকডাউনের নির্দেশ ভঙ্গের কারণ জানতে চাইলে এক ই-রিক্সা চালক জানান। লকডাউনের ফলে তাদের আয় সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে পরেছে। ফলে আর্থিক টানাপোড়েনের কারণেই বাধ্য হয়ে অর্থ উপার্জনের তাগিদেই ই-রিক্সা নিয়ে রাস্তায় নেমেছেন। যদিও পরবর্তীতে ট্রাফিক দপ্তরের নির্দেশেই ই-রিক্সা চালকগন নিজ নিজ বাড়িতে ফিরে যান। তবে বৃহস্পতিবার  ধর্মনগরে বাইকচালকদের জোর জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হয়। বাইকচালকদের বিরুদ্ধে আইন অমান্য কারিদের চিহ্নিত করে জরিমানাও করা হয়। এভাবে বৃহস্পতিবার সারাদিন ধর্মনগরে লকডাউন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চলে পুলিশ ও ট্রাফিকের দৌড়ঝাপ।



কোন মন্তব্য নেই