HeadLogo

পুবে তাকাও বিষয়সূচী


সবুজ ত্রিপুরা, সংবাদমাধ্যম, ১৭ জুলাই :  ভারত সরকারের অ্যাক্ট ইস্ট নীতির লক্ষ্য হলো পূর্বাঞ্চল সংলগ্ন প্রতিবেশী দেশগুলির সাথে  সম্পর্ক সুদৃঢ় করা৷ ২০১৬-১৭ সালে কূয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত এই অঞ্চলের দেশগুলির বিদেশমন্ত্রীদের ত্রয়োদশ সামিতে রাজনৈতিক নিরাপত্তা, অর্থনৈতিক আর্থ-সামাজিক, তিনটি খুঁটির উপর এশিয়ান-ইন্ডিয়া সম্পর্কের রূপরেখা (২০১৬-২০)প্রণয়ন করা হয়েছিল৷ এই পরিকল্পনার অধীনে একাধিক কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে৷ যারমধ্যে অন্যতম ছিল গত - ফেব্রুয়ারি ২০১৯ তারিখে গুয়াহাটিতে অনুষ্ঠিত এশিয়ান-ইন্ডিয়া ইয়ূথ সামিত, এশিয়ান- ভারতের বাণিজ্য ২০১৭-১৮ সালে একলাফে ৮১.৩৩ বিলিয়ন ডলারে নিয়ে যাওয়া, যেখানে ২০১৬-১৭ সালে এই বাণিজ্যের পরিমাণ ছিল মাত্র ১৩.৬৪ শতাংশ৷
আজ লোকসভায় একটি লিখিত উত্তরে এই তথ্য দিয়েছেন ডেভলপমেন্ট অব নর্থ ইস্টার্ন রিজিওন(ডোনার)এর স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত রাষ্ট্রমন্ত্রী, তথা প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী, পার্সোনাল, পাবলিক গ্রিভেন্স, এটমিক এনার্জি এন্ড স্পেস দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ড. জীতেন্দ্র সিং৷
শ্রী সিং জানান- বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলির উন্নয়ন এবং সমৃদ্ধির উপর কেন্দ্রীয় সরকার জোর দিচ্ছে৷ এরমধ্যে রয়েছে বাংলাদেশের সাথে যোগাযোগ গড়ে তোলা, মায়ানমার থেকে উত্তর পূর্বের পর্যটন এবং সীমান্ত পাড় সংযোগ গড়ে তোলা, মোরেতে সীমান্ত ভূমি পাড়াপারের জন্য চুক্তি এবং সুসংহত স্থল বন্দর স্থাপন, ভারত-মায়ানমার-থাইল্যান্ড ত্রিদেশীয় হাইওয়ে নির্মাণ, মায়ানমারে কালাদন মাল্টি মডেল ট্র্যানজিট ট্র্যা্ন্সপোর্ট প্রজেক্ট স্থাপন৷
এশিয়ানভুক্ত সদস্য দেশগুলির সাথে যৌথভাবে বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিতে ইন্দো-প্যাসিফিক ডিভিশন বাজেট, এশিয়ান-ইন্ডিয়া ফান্ড, এশিয়ান-ইন্ডিয়া গ্রীণ ফান্ড এবং এশিয়ান-ইন্ডিয়া সায়েন্সে এন্ড টেকনোলজি ডেভলপমেন্ট ফান্ড স্থাপন করা হয়েছে৷ প্রয়োজনের ভিত্তিতে এই অর্থ অন্যত্র কাজে লাগানো হচ্ছে৷

তিনটি নীতিকে ভিত্তি করে ভারত বাংলাদেশকে বিলিয়ন আমেরিকান ডলার অর্থ সাহায্য করেছে৷ বাংলাদেশের মাধ্যমে উত্তর পূর্বের যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে ভারত সরকার বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিয়েছে৷ কালাদন মাল্টি মডেল ট্র্যানজিট ট্র্যান্সপোর্ট প্রজেক্ট, ৬৯টি সেতুর উন্নতি, কালোয়া ইয়াগ্রি ত্রিদেশীয় সড়ক প্রকল্প পরিকাঠামোর জন্য ভারত মায়ানমারকে .০৪ বিলিয়ন প্রকল্প অনুদান এবং ৪৭৮. মিলিয়ন সুদ মুক্ত ঋণ প্রদান করেছে বলে জানিয়েছেন শ্রী সিং৷

আরও পড়ুন : ই-কমার্স এবং প্রযুক্তি সংস্থাগুলির সঙ্গে বাণিজ্য মন্ত্রীর বৈঠক

কোন মন্তব্য নেই