কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে দেশের বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সাথে প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল সভা- Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
১০ এপ্রিল
শনিবার
বিশেষ প্রতিনিধি:- কোভিড-১৯ সংক্রমণজনিত বর্তমান পরিস্থিতি ও ভ্যাকসিন প্রয়োগের কৌশলগত নীতি নিয়ে আজ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভার্চুয়াল সভা করেন। রাজ্য সচিবালয়ে এই ভার্চুয়াল সভায় মুখ্যসচিব মনোজ কুমার, স্বাস্থ্য দপ্তরের প্রধান সচিব জেকে সিনহা, জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের ত্রিপুরা শাখার মিশন ডিরেক্টর ডা. সিদ্ধার্থ শিব জয়সবাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী এই ভার্চুয়াল সভায় কোভিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধে রাজ্যগুলিকে আরও বেশি।
পরিমাণে টেস্টিং বাড়ানোর জন্য জোর দিতে বলেন। তিনি কোভিড-১৯ টিকাকরণের লক্ষ্যে আগামী ১১ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত টিকা উৎসব পালন করার কথা উল্লেখ করেন যাতে যোগ্য ব্যক্তিদের বেশি করে টিকাকরণের আওতায় নিয়ে আসা যায়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ টিকা নেওয়ার পরও সতর্ক থাকতে হবে। পাশাপাশি তিনি মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন তৈরির উপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন। এই কনটেইনমেন্ট জোনগুলিতে বসবাসকারী একজন ব্যক্তি ও যেন কোভিড টেস্টিং থেকে বাদ না পরে তার জন্য বিশেষ নজর দিতে হবে।
এছাড়াও তিনি নাইট কাফুর পরিবর্তে করোনা কার্টু শব্দ ব্যবহারের কথা বলেন। ভার্চুয়াল সভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাত ৯/১০টা থেকে সকাল ৫টা বা ৬টা পর্যন্ত করোনা কাফুর সময় হওয়া উচিত। প্রশাসনকে বিগত দিন থেকে করোনা মোকাবিলায় আরও বেশি করে সজাগ দৃষ্টি রাখার উপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি যুবক-যুবতীদের যথাযথভাবে কেন্দ্রীয় সরকারের করোনা সংক্রান্ত এসওপি (স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর) মেনে চলার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন। পাশাপাশি যারাই ডিজিটাল ব্যবস্থাপনার কারণে ভ্যাকসিন নেওয়ার ক্ষেত্রে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন তাদের সহায়তায় যুবদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। ৪৫ বছর উর্ধ বয়সীদের টিকাকরণে নিশ্চিত করতে রাজ্যগুলিকে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেন তিনি, যাতে করে যোগ্য ব্যক্তিদের এই টিকাকরণের আওতায় নিয়ে আসা যায়।

তিনি ভ্যাকসিন অপচয় রোধে রাজ্যগুলিকে বিশেষভাবে নজর দেওয়ার জন্যও গুরুত্ব আরোপ করেন। প্রধানমন্ত্রী করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যুর সঠিক তথ্য সংগ্রহের উপরও গুরুত্ব আরোপ করেন। রাজ্যপালদের নেতৃত্বে করোনা সংক্রমণের সচেতনতামূলক ওয়েবিনার আয়োজন করার জন্যও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা উল্লেখ করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা নিয়ে কোনওভাবেই রাজনীতির স্থান নেই। একযোগে সবাই সম্মিলিতভাবে কাজ করে করোনা মোকাবিলায় আমরা জয়ী হবো বলে তিনি আশাব্যক্ত করেন। এদিনের ভার্চুয়াল সভায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. হর্ষবর্ধন উপস্থিত ছিলেন। তাছাড়া বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীগণ করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে রাজ্যগুলির গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে এই ভার্চুয়াল সভায় অবহিত করেন। সভায় কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের সচিব বিভিন্ন রাজ্যগুলির দৈনিক নতুনভাবে সংক্রমণ, মৃত্যু, টেস্টিং প্রভৃতি তথ্য পরিসংখ্যানের মাধ্যমে তুলে ধরেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য

Close Menu