Ad Code

Responsive Advertisement

তুলাশিখর ব্লকে কালবৈশাখীর তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে মুখ্যসচিব-Sabuj Tripura news

সবুজ ত্রিপুরা
2 এপ্রিল
শুক্রবার
বিশেষ প্রাতিনিধি:-মুখ্যসচিব মনোজ কুমার আজ বিকেলে খোয়াই মহকুমার তুলাশিখর ব্লকের আশারামবাড়ির বিভিন্ন এলাকায় কালবৈশাখীর তান্ডবে 
ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন।পরিদর্শনকালে মুখ্যসচিবের সাথে ছিলেন জেলাশাসক স্মিতা মল , ও পুলিশ সুপার রাজীব সেনগুপ্ত , মহকুমা শাসক অসিত কুমার দাস , এসডিপি ও রাজীব সুত্রধর সহ কৃষি ও কৃষক কল্যাণ কার্যালয়ের জেলা আধিকারিক , ডিডব্লিউএস , বিদ্যুৎ দপ্তরের 

আধিকারিক,তুলাশিখর ব্লকের বিডিও নবকুমার জমাতিয়া প্রমুখ।মুখ্যসচিব সহ প্রশাসনিক প্রতিনিধিদলটি প্রথমে আশারামবাড়ি বাজার পরিদর্শন করেন।এরপর আশারামবাড়ির থানাবস্তি এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত থানাবস্তি জুনিয়র বেসিক স্কুল ও কৃষ্ণমা বস্তির ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ঘুরে দেখেন।এরপর আশারামবাড়ি দ্বাদশ শ্রেণী বিদ্যালয়ের অস্থায়ী শরণার্থী শিবির পরিদর্শন করেন।এই শিবিরে ১১ পরিবারের ৪৫ জন রয়েছেন।পরে মুখ্যসচিবের নেতৃত্বে প্রশাসনিক দলটি কৃষ্ণমা বস্তি জে বি স্কুলের অস্থায়ী শিবির পরিদর্শন করেন।এই শিবিরে ১৬ পরিবারের ৬৮ জন রয়েছেন।প্রতিনিধিদলটি শিবিরে আশ্রিতদের সাথে কথা বলেন ও স্বাস্থ্য সহ বিভিন্ন বিষয়ে খোজ খবর নেন।ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনের সময় মুখ্যসচিব 

মনোজ কুমার বিভিন্ন দপ্তরের জেলা আধিকারিকদের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় যে সমস্ত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা নিরুপনের কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে নির্দেশ দেন।মহকুমা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার ৭ টি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ঘর 

মেরামতের জন্য ৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে ও ২০ টি পরিবারকে ঘর মেরামতির জন্য ৩ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে।এই ২ টি অস্থায়ী শিবিরে ২৭ টি পরিবারের মধ্যে শিশু খাদ্য সহ অন্যান্য খাদ্য সামগ্রীও সরবরাহ করা হয়েছে।প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ১ টি চিকিৎসক দল।নিযুক্ত করা হয়েছে বলে মহকুমা শাসক অসিত কুমার দাস জানান।তাছাড়া পানীয়জল ও স্বাস্থ্য বিধি দপ্তরের পক্ষ থেকে ২ টি শিবিরেই ট্যাংকারে করে পানীয়জল সরবরাহ করা হয়েছে।এদিকে বিদ্যুৎ নিগমের এজিএম স্বপন দেববর্মা জানান , ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাতে ঘূর্ণিঝড়ে ৮৭ টি বিদ্যুৎ খুঁটি ও ২ টি ট্রান্সফরমার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে এবং তা দ্রুত সারাইয়ের কাজ চলছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য

Close Menu