গোপন সূত্রের ভিত্তিতে পুলিশ সুপার ভানুপদ চক্রবর্তীর উদ্যোগে বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার - Sabuj Tripura News

সবুজ ত্রিপুরা
২৮ আগষ্ট ২০২০
শুক্রবার 

চুরাইবাড়ি প্রতিনিধিঃ উত্তর জেলার পুলিশ সুপার ভানুপদ চক্রবর্তীর কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে আগরতলা থেকে একটি পাথর পরিবহনকারী ডাম্পার গাড়ি দিয়ে বিপুল পরিমাণ গাঁজা বহিরাজ্য পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাচ্ছে। পুলিশ সুপারের গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চুড়াইবাড়ি থানার পুলিশ গতকাল থেকে থানার সম্মুখে নাকা পয়েন্টে উৎপেতে বসে থাকে। আজ বিকেল প্রায় তিনটে নাগাদ চুরাইবাড়ি থানার সম্মুখের নাকা পয়েন্টে TR০১H/১৬৮৯ নম্বরের পাথর পরিবহনকারী ছয় চাকার একটি ডাম্পার গাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে চুরাইবাড়ি থানার পুলিশ। 


পাথর পরিবহনকারী ডাম্পার গাড়ির বডির নিচে তিনটি বক্স থেকে ৫০ প্যাকেটে ৫০০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করে পুলিশ। প্রতি প্যাকেটে ১০ কেজি করে গাঁজা মজুদ রয়েছে। উদ্ধারকৃত গাঁজার বাজার মূল্য প্রায় ৫০ লক্ষাধিক টাকা। সাথে আটক করা হয় পাথর পরিবহনকারী ডাম্পার গাড়ি ও গাড়ির চালক সত্তার মিয়াকে (২৪) এবং সহ চালক মোঃ সবুজ (২৫) কে। জানা গেছে চালক সত্তার মিয়ার বাড়ি সোনামুড়া ও সহচালক মোহাম্মদ সবুজের বাড়ি উদয়পুরে। 


চুড়াইবাড়ি থানার পুলিশ সুনির্দিষ্ট ধারায় এনডিপিএস এক্টে একটি মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করে দিয়েছে।এদিকে উত্তর জেলার পুলিশ সুপার ভানুপদ চক্রবর্তী জানান, উনারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল থেকে ডাম্পার গাড়িটিকে আটক করার জন্য চুরাইবাড়ি থানা এলাকায় উৎপেতে বসে ছিলেন। বর্তমানে বিপুল পরিমাণ গাঁজা, চালক,সহ চালক ও ডাম্পার গাড়িটি চুড়াইবাড়ি থানার হেফাজতে রয়েছে। পুলিশ সুপার আরো জানান ডাম্পার গাড়ি দীর্ঘদিন থেকে এভাবে গাঁজা পাচার করে আসছিল। 


ডাম্পার গাড়ির চেসিসের উপরে বডিতে তিনটি কেবিনের মত বক্স বানিয়ে গাঁজা পাচার করছিল। এমনকি গাড়ির সঠিক নাম্বারের পাশাপাশি AS০১JC/৯৪১৭ নম্বরে একটি ভূয়ো নাম্বার প্লেট ব্যবহার করা হতো যা পুলিশ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে।আজকের এই গাঁজা বিরোধী অভিযানে নেতৃত্ব দেন উত্তর জেলার পুলিশ সুপার সহ মহাকুমা পুলিশ আধিকারিক ও চুড়াইবাড়ি থানার ওসি।




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য

Close Menu