HeadLogo

ঘূর্ণিঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, কদমতলা ব্লকাধীন সাতসঙ্গম গ্রাম পঞ্চায়েতে




সবুজ ত্রিপুরা,  চুরাইবাড়ি প্রতিনিধি ,  ০৪ এপ্রিল  : বর্ষাকাল শুরু হতে না হতেই ঘূর্ণিঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি এক গৃহস্বামীর। আংশিক ক্ষতি একটি গ্রামেরও। ঘটনা উত্তরের কদমতলা ব্লকাধীন সাতসঙ্গম গ্রাম পঞ্চায়েতের ৫ নং ওয়ার্ডের বিরজানগরে। গতকাল রাত্রিবেলা প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে সাতসঙ্গম গ্রাম পঞ্চায়েতে বিরজানগর গ্রামে প্রবল ক্ষয়ক্ষতি হয়। 




          যদিও সকলের অল্পবিস্তর ক্ষয়ক্ষতি হলেও ৫ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সুশীল চন্দ্র দাস, পিতা - মৃত সুষেন্দ্র দাসের ঘরে উপর বড় একটি বনাক গাছ উপড়ে পড়ে। ঘূর্ণিঝড়ের ফলে গাছটি ঘরের উপর পড়ে যাওয়ায় ঘরের ছাউনিটি সম্পূর্ণরূপে ভেঙে চুরমার হয়ে যায়। ভাগ্যের জোরেই গৃহস্বামী উনার স্ত্রী ও এক পুত্রসন্তান নিয়ে প্রাণে বাঁচেন। তবে উনার ছোট বাচ্চাটি অল্পবিস্তর আহত হলে কদমতলা গ্রামীণ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা করে পরে বাড়িতে নিয়ে আসেন।




              এই ঘটনার খবর পেয়ে আজ ঘটনাস্থলে ছুটে যান কদমতলা ব্লকের ব্লক উন্নয়ন আধিকারিক শ্রী কোমল দেববর্মা ও কদমতলা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শ্রী সুব্রত দেব। উনারা সরজমিনে তদন্ত করে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে গৃহস্বামীকে আশ্বস্ত করেন যে, সরকারের তরফ থেকে তাদেরকে আর্থিক সাহায্য করা হবে। 





                  ওনাদের আশ্বাসে আশ্বস্ত হয়ে দিনমজুর গৃহস্বামীর মনে কিছুটা আশার আলো দেখা দিয়েছে। কারণ দিনমজুর সুশীল চন্দ্র দাসের পক্ষে নতুন করে ঘর তৈরি করার আর্থিক সামর্থ্য নেই। এই ঘটনার পর বিরজানগর গ্রামে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত অন্যান্য পরিবারেরও খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে কদমতলা ব্লকের তরফ থেকে।



কোন মন্তব্য নেই