HeadLogo

রাজ্যের প্রবেশদ্বার করোনা মোকাবিলায় কতটুকু তৎপর ! পরিদর্শন করে গেলেন অতিরিক্ত মুখ্য সচিব এস কে রাকেশ



সবুজ ত্রিপুরা, চুড়াইবাড়ি প্রতিনিধি, ১০মে : রাজ্যের প্রবেশদ্বার অর্থাৎ করোনা ভাইরাসের ঝুঁকিপূর্ণ স্থান চুড়াইবাড়ি সফর করে গেলেন অতিরিক্ত মুখ্য সচিব এস কে রাকেশ। আজ বেলা সাড়ে এগারোটা নাগাদ আগরতলা থেকে রাজ্যের প্রবেশদ্বার চুড়াইবাড়ির পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে সরজমিনে আসেন রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব এস কে রাকেশ। উনার সাথে ছিলেন উত্তর জেলার স্বাস্থ্য আধিকারিক জগদীশ নমঃ, জেলাশাসক রেবেল হেমেন্দ্র কুমার, জেলা পুলিশ সুপার ভানুপদ চক্রবর্তী সহ অন্যান্য উচ্চপদস্থ আধিকারিক। 
বর্তমানে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি হু হু করে বাড়ছে। আর বহিরাজ্য থেকে পন্যবাহী লড়ি চালক, সহ চালক ও যাত্রীদের শরীরের করোনা পজেটিভ সংক্রমণ আছে কিনা তা সনাক্ত করতে স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে বিশেষ টিম বসানো হয়েছে চুড়াইবাড়ি সেল ট্যাক্স কমপ্লেক্সের ভিতরে। কিন্তু সেখানে ঢিলেমি থাকার কারনে যাত্রী ও চালকদের দীর্ঘ লাইন লেগে থাকে। অতিরিক্ত মুখ্য সচিব প্রথমে চুড়াইবাড়ি সেলটেক্স কমপ্লেক্সের ভেতরে করোনা ভাইরাস স্ক্যানিং সেন্টারের স্বাস্থ্য কর্মীদের সাথে কথা বলেন। তারপর ছুটে যান চুড়াইবাড়ি থানার সামনে। সেখানে রাজ্যে প্রবেশ ও বেরিয়ে যাওয়া লড়ি কিভাবে আসা-যাওয়া করছে তা নিয়ে পুলিশের সাথে আলোচনা করেন। সেখান থেকে ছুটে যান দেশের বিভিন্ন প্রান্তের রেডজোন থেকে আশা যাত্রী ও চালকদের কোয়ারেন্টিন করে রাখা খেরেংজুরি জহর নবোদয় বিদ্যালয়ে। সেখানে গিয়ে খোঁজখবর নেন অতিরিক্ত মুখ্যসচিব এসকে রাকেশ। তারপর সেখান থেকে পানিসাগর উদ্দেশ্যে পাড়ি দেন।  
শনিবার মাঝরাত থেকে অসম সরকার ত্রিপুরা রাজ্যের নাগরিক অসমে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। চালকদের অভিযোগ ২/৩ দিন ধরে কাঁচামাল থেকে শুরু করে ফল ও মাছের গাড়িগুলি দাঁড়ানো থাকায় সকল সামগ্রী নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। যেহেতু রাজ্যের একমাত্র প্রবেশদ্বার চুড়াইবাড়ি সুতরাং এই প্রবেশদ্বারে করোনা মোকাবিলা করতে কতটুকু তৎপর সংশ্লিষ্ট দপ্তর তা নিয়েও যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।  

ত্রিপুরার প্রবেশদ্বার চুড়াইবাড়ি কিন্তু বিপদজনক অবস্থানে রয়েছে। এখানে গাড়ি গুলিকে সেনিটাইজ করা হচ্ছে না। তা ত্রিপুরার জন্য অত্যন্ত ঝুঁকির বিষয়। রাজ্য সরকারকে সীমান্ত সুরক্ষায় কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। ত্রিপুরার প্রবেশদ্বার ও তার আশপাশ এলাকাকে সুরক্ষিত রাখলে ত্রিপুরার জন্য ঝুঁকি কম থাকবে বলে অভিজ্ঞ মহলের ধারণা।


ছবিঃকিশোর রঞ্জন হোড়

কোন মন্তব্য নেই