HeadLogo

কন্টেনমেন্ট জোন এলাকায় উত্তেজনা বিডিও-র ভূমিকায় ক্ষোভ - Sabuj Tripura News


সবুজ ত্রিপুরা
১০জুন, ২০২০
বুধবার


ধর্মনগর প্রতিনিধি: 
রাজ্যে প্রতিদিন বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। যদিও আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে  উত্তর জেলায় আক্রান্ত খুবই কম। তথাপি উত্তর জেলার কন্টেনমেন্ট জোনের জনগনের সমস্যা নিয়ে প্রতিদিন উঠছে অভিযোগের ওপর অভিযোগ। একে তো কন্টেনমেন্ট জোন এলাকার জনগনদের মিলছেনা কোন সরকারি সহযোগিতা। অপরদিকে থেকে এই কন্টনমেন্ট এলাকার আইনকানুন ভাঙ্গছেন প্রশাসনেররই কিছু কর্তা ব্যাক্তিরা।এ নিয়ে ধর্মনগর দেওয়ান পাশা কন্টেনমেন্ট জোন এলাকা বুধবার সকাল সকাল উত্তপ্ত হয়েউঠে।জানা গেছে  দেওয়ানপাশা এলাকাকে কন্টেনমেন্ট জোন  হিসেবে ঘোষণা করার পর থেকে অভিমুন্য ঘোষ নামে এক প্রশাসনিক কর্তাব্যক্তি স্বইচ্ছায় নিজের ব্যক্তিগত  গাড়ি নিয়ে  সরকারিভাবে দেওয়ানপাশা ক্যান্টনমেন্ট জোন হিসেবে  সিলকরা গেইটকে  উঠিয়ে সেই এলাকায় একাধিকবার  প্রবেশ করেছেন। রেড কনটেইনমেন্ট জোন এলাকার বসবাসকারীদের এমনই অভিযোগ।তারা জানিয়েছেন কন্টেনমেন্ট জোন ঘোষণার পরথেকে অভিমুন্য ঘোষ নামে ঐ পুলিশ কর্মীকে এলাকাবাসী গাড়ি নিয়ে এলাকায় প্রবেশ করতে ও বের হতে বহুবার নিষেধ করলেও অভিমন্যু বাবু তা কর্নপাত করেননি। 


কিন্তু বিগত কিছু দিন পূর্বে সে এলাকায়  সরকারি সিল করা গেট খুলে গাড়ি বের করতে চাইলে এলাকা বাসী বাঁধা দেন। এতেই বাঁধে বিপত্তি। এলাকাবাসী   জানান বুধবার সকালে অভিমন্যু ঘোষ নামের ঐ পুলিশ কর্মী দুইগাড়ি পুলিশ সহ এলাকায় আসেন গাড়ি নিয়ে যেতে। কিন্তু এলাকার নারী পুরুষ একসাথেই বাধা হয়ে দাঁড়ান। বের করতে দেওয়া হয়নি গাড়িটিকে। তারপর সংশ্লিষ্ট এলাকায় ছুটে আসেন যুবরাজ নগর ব্লকের বিডিও অনুপম দাস।তিনিও এসে এলাকাবাসীর কাছে গাড়িটি বের করে নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করেন।

কিন্তু পাল্টা  প্রতিবাদি এলাকাবাসী দাবি করেন। সিলখুলে  গাড়ি বের করলে এই এলাকায় আর গেইট বসানো যাবে না। সময়ের সাথে সাথে উত্তেজনা বাড়তেই থাকে। একটা সময় উত্তেজনা সামাল দিতে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন দেওয়ানপাশা গ্রাম পঞ্চায়েতের উপ-প্রধান বিমল বিশ্বাস। কিন্তু দুর্ভাগ্য জনক বিষয় লক্ষ্য করাযায়। উপ-প্রধান মহোদয় সরকারি আদেশকে অমান্য করে মাস্কনা লাগিয়েই এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলছিলেন। সুধু উপ-প্রধান নয় স্থানীয় ব্লক এলাকার বিডিও সাহেব কন্টেনমেন্ট জোন এলাকার জনগনদের মাস্ক পরে সামাজিক দূরত্ব মানার কথা বারবার বললেও অনেক সময় লক্ষ্য করা যায় ওনার নিজের মুখেই মাস্ক নেই।পরবর্তীতে যুবরাজ নগর ব্লকের বিডিও সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রেড কন্টেনমেন্ট জোনের বিভিন্ন নিয়মগুলো তুলে ধরেন।এবং তিনি বলেন রেড কন্টেনমেন্ট জোনে প্রথম ১৪ দিনে কেউ প্রবেশ করতে পারবে না তেমনি এলাকা থেকে কেউ বের হতেও পারবে না।

তবে প্রশ্ন হচ্ছে কন্টেনমেন্ট জোন এলাকা থেকে যদি বের হওয়া ও সংশ্লিষ্ট এলাকায় প্রবেশ করা নিষেধ হয়ে থাকে তবে বিডিও সাহেব প্রশাসনিক ব্যাক্তি হয়ে কেনই বা গাড়িটি বের করে নিয়ে যাওয়ার জন্য এলাকাবাসীদের অনুরোধ করলেন। তবে কি উনি সরকারি আদেশকে ভাঙ্গতে চাইছেন।পাশাপাশি পুলিশ কর্মী অভিমন্যু ঘোষ রেড কন্টেনমেন্ট জোনে প্রবেশ করায় তাকে অতিসত্তর হোম কোয়ারেন্টাইনে নেওয়ার দাবি তুলেছে এলাকাবাসী।


কোন মন্তব্য নেই