HeadLogo

রাজস্থানের কোটা থেকে রাজ্যে এসে প্রবেশ করল ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবক নিয়ে ১০টি নাইট সুপার



সবুজ ত্রিপুরা, চুড়াইবাড়ি প্রতিনিধি, ০৬ মে : করোনা আতঙ্কের মধ্যে বহিঃ রাজ্যে অবস্থানরত ত্রিপুরা রাজ্যের ছাত্র-ছাত্রী ও তাদের অভিভাবকদের ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে রাজ্য সরকার। আজ ২৩৭ জন‌ ছাত্র-ছাত্রী রাজস্থানের কোটা থেকে রাজ্যে আসে। তাদের সাথে তাদের অভিভাবক, সিকিউরিটি গার্ড ও চালক মিলিয়ে প্রায় ২৬০ জন রাজ্যে আসেন। 
আজ সকালে ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকরা  ১০টি নাইট সুপারে করে চুরাইবাড়ি আসলে পরীক্ষার জন্য লম্বা লাইন লেগে যায়। সেই লাইনে কোন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হচ্ছে না। আর হাতে গুনা কয়েক জন পুলিশ কর্মী মোতায়েন করা হয়েছে সেইলটেক্স কমপ্লেক্সে, আর তাদের পক্ষে এই বিশাল সংখ্যক মানুষকে সামাল দেওয়া সম্ভব নয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তাদেরকে সরকারি উদ্যোগে কোয়ারেন্টিন  করে রাখা হবে। 

অপরদিকে চুরাইবাড়ি গেইটে আটকা পড়া চালকরা জানালেন তারা এখানে খাবারদাবার কিছু পাচ্ছেন না। চড়া দামে জিনিসপত্র কিনতে হচ্ছে। ছয় দিন হয়ে গেলেও রিপোর্ট  এখনো আসেনি।  ভারতবর্ষের বিভিন্ন জায়গা থেকে আগত চালকরা বাজারে ঘোরাফেরা করছে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। 

বহি রাজ্য থেকে ফেরা ছাত্রছাত্রীরা জানালো রাজ্য সরকার তাদের পারমিশন দেওয়ায় তারা রাজ্যে ফিরে এসেছে। বর্তমানে রাজ্য সরকার যা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে তা তারা পালন করবে। এদিকে চুড়াইবাড়ি সেলটেক্সে স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা দিনরাত অর্থাৎ ২৪ ঘন্টা পরিষেবা দেওয়ার কথা থাকলেও পুরো সময় পর্যন্ত স্বাস্থ্যকর্মীর দেখা পাওয়া যায় না বলেও চালক ও যাত্রীদের একগুচ্ছ অভিযোগ। ফলে সকলেরই ভোগান্তি চরমে। 

ত্রিপুরার প্রবেশদ্বার চুরাইবাড়ির উপর রাজ্য সরকারের বিশেষ নজরদারি প্রয়োজন। এখানে পুলিশ কর্মীর সংখ্যা বাড়াতে হবে।




কোন মন্তব্য নেই