HeadLogo

ধংসের মুখে স্কুল, গ্রাম প্রধানের বাড়িতেই চলছে স্কুলের পঠন পাঠন



সবুজ ত্রিপুরা, চুড়াইবাড়ি প্রতিনিধি, মে : কদমতলায় অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের ভূমি দখল ফলে গ্রাম প্রধানের বাড়িতেই চলছে স্কুল। এদিকে স্কুল ঘরের চালের টিন  চুরি হয়ে গেলে, এ নিয়ে পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ থানায় মামলা করেছেন। ঘটনার বিবরণে প্রকাশ উত্তরের কদমতলা ব্লকাধীন সরসপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বড়গোল অঙ্গনওয়াড়ি সেন্টারটি বিগত ৪-৫ বছর ধরে বন্ধ। হিমাংশু নাথ নামে এক ব্যক্তি স্কুলটি নিজের জায়গায় বলে দাবি করলে পরবর্তীতে স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়। এর ফলে স্থানীয় গ্রাম প্রধানের বাড়িতে স্কুল চলে । বর্তমানে ঐ স্কুল ঘড়টি অযত্নে প্রায় ধংসের মুখে, ফলে সরকারি সম্পত্তি নষ্ট হচ্ছে। 
কদমতলা গ্লোবাল স্কুলের পাশেই এই অঙ্গনওয়াড়ি সেন্টারটি অবস্থিত। হিমাংশু নাথ নামের এই ব্যক্তি নিজের জায়গায় স্কুল বসানো হয়েছে বলে দাবি করছেন যার ফলশ্রুতিতে স্কুলটি আজ বন্ধ। অপরদিকে এই গ্রামের অপর এক ব্যক্তি দাবি করছেন যে হিমাংশু নাথ প্রভাব খাটিয়ে স্কুলের জায়গা দখল করেছেন এবং উনার কোনো কাগজপত্র নেই। কিন্তু এই বিষয়টাকে এত বছর ধরে এভাবেই রাখা হয়েছে কোন নিষ্পত্তি হয়নি। এই ঘটনা নিয়ে সিডিপিও সাহেবের কোন ভূমিকা লক্ষ্য করা যায়নি। বাম আমলের ঘটনা রাম আমলেও  দুই বছর পেরিয়ে গেছে স্থানীয় নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে প্রশাসনিক আমলারা ও পর্যন্ত বিষয়টাকে নিয়ে নিরব। 


সরকারি সম্পত্তি এভাবেই নষ্ট হচ্ছে। বেদখল হচ্ছে অথচ প্রশাসন কোনো ভূমিকা গ্রহণ করছে না। এই অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে প্রায় ৪০ জন ছাত্রছাত্রী রয়েছে। এলাকাবাসীর তরফ থেকে দাবি উঠছে সংশ্লিষ্ট দপ্তর উদ্যোগ গ্রহণ করে, সরকারি স্কুলের জায়গা দখল মুক্ত করে, পুনরায় অঙ্গনওয়াড়ি স্কুলটি চালু করতে।

ছবিঃ কিশোর রঞ্জন হোড়

কোন মন্তব্য নেই