HeadLogo

উত্তর জেলার পাথর কুঁয়ারীর দিনমজুর শ্রমিকদের দুরবস্থা, খাদ্য সংকট চরমে

সবুজ ত্রিপুরা, চুরাইবাড়ি প্রতিনিধি, ০১ এপ্রিল : করোনা ভাইরাস নিয়ে সবাই আতঙ্কিত। সরকার বলছে ঘরে থাকুন। কিন্তু দিনমজুর শ্রমজীবী মানুষের পেটে অন্ন তুলে দেবে কে? সেই প্রশ্নটা এখন ঘুরপাক খাচ্ছে। এমন সংকটের পরিস্থিতিতে পাথর শ্রমিকদের পাশে দাঁড়াচ্ছে না কেউ।

 test

             উত্তর জেলার চুরাইবাড়ি এলাকায় বেশ কয়েকটি পাথর কুঁয়ারীতে কদমতলা থেকে শ্রমিকরা এসে কাজ করে। সেই শ্রমিক পরিবারগুলোতে দেখা দিয়েছে খাদ্য সংকট। মালিকরা সামান্য আর্থিক সাহায্য করলেও সেই অর্থ দিয়ে দুবেলা দুমুঠো ভাত জুটছে না তাদের ভাগ্যে। পাথর শ্রমিক হাসনা বেগম জানালেন ঘরের চাল-ডাল কিছুই নেই। দুটি সন্তান রয়েছে; রাত হয়তো তাদের উপোস ঘুমাতে হবে। আরেক পাথর শ্রমিক জানালেন কেউ কেউ পেটের দায়ে কাজ করছেন, আবার পুলিশ এলে দৌড়ে পালিয়ে যাচ্ছেন। তাদের কিছুই করার নেই।


           এলাকার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে তথাকথিত সমাজসেবীরা এরা কিভাবে আছে, তার খোঁজখবর নেন নি। পেটের দায়ে এরা কাজ করছে, যদি সংক্রমিত হয় দায়ভারটা কে নেবে? সরকারের পাশাপাশি তাদের জন্য এগিয়ে আসতে হবে ক্লাব, সামাজিক প্রতিষ্ঠান এনজিওগুলিকেও। এই সংকটের সময়ে একটা জিনিস পরিলক্ষিত হচ্ছে সেটা হল, দুর্গাপূজা কালীপূজার সময়ে যে সমস্ত ক্লাব গুলি জোর জুলুম করে চাঁদা আদায় করে, আজ এই দুঃসময়ে তারা কিন্তু মানুষের পাশে নেই। সব নিজ নিজ ঘরে বসে আছে। শ্রমজীবী মানুষ আজ অসহায়। যেভাবে খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে অতিসত্বর এই শ্রমিক পরিবারগুলিকে খাদ্য সামগ্রী না দিলে এরা হয়তো কাজের জন্য বাইরে বেরিয়ে পড়বে।



কোন মন্তব্য নেই