HeadLogo

পানিসাগর থানার এক নতুন মুখ, সামাজিক কর্মকান্ডে স্থাপন করল এক নজির

সবুজ ত্রিপুরা, পানিসাগর প্রতিনিধি, ২৬ অক্টোবর : আইনি গেঁড়াকলের এবং শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার দায়িত্ব পালনের মধ্যে থেকেও সামাজিক দায়বদ্ধতা নিয়ে সমাজের জন্য ভালো কিছু করা যায়, এমন উদাহরণ সকলের সামনে রাখল উত্তর জেলার পানিসাগর থানার কর্তৃপক্ষ।
দীপাবলি ও শ্যামামায়ের পূজাকে কেন্দ্র করে পানিসাগর আরক্ষা প্রশাসন এবছর নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করল। পানিসাগর থানাধীন অগ্নিপাসার বালকমণি বিদ্যালয়ে এবং রামনগরস্হিত অনাথ আশ্রমে পাঠরতা ছাত্রদের মধ্যে বস্ত্রবিতরণ করেন। বালকমণিতে মোট ৯ জন এবং রামনগরে অনাথ আশ্রমে মোট ২২ জনের মধ্যে এই বস্ত্রবিতরণ করা হয়। এতে অংশ গ্রহণ করেন পানিসাগর  থানার ওসি শ্রী সৌগত চাকমা, এস.আই. বীর কিশোর ত্রিপুরা সহ অন্যান্য আধিকারিকেরা।শুধু তাই নয় এবারকার শ্যামাপূজা উপলক্ষে নিজেদের কর্মী ব্যতীত বাহির থেকে কোন চাঁদা সংগ্রহ করা হয়নি।
গতকাল সন্ধ্যায় শ্যামাপূজো উপলক্ষ্যে আয়োজিত সাংস্কৃতিক মঞ্চে স্হানীয় এলাকার বাইক এবং স্কুটি চালকদের মধ্যে যারা বিগত একবছরে ট্রাফিক আইন মেনে নিয়মিত হেলমেট পরে যানবাহন চালিয়েছেন, সেই সকল ব্যক্তিদের মধ্যে মোট ২০ জনকে উপহারের মাধ্যমে পুরস্কৃত করা হয়। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পানিসাগর মহকুমা পুলিশ আধিকারিক শ্রী অভিজিৎ দাস মহাশয়, পানিসাগর থানার বড়বাবু শ্রী সৌগত চাকমা সহ অন্যান্য আরক্ষা আধিকারিকবৃন্দ। এছাড়াও ছোট ছোট শিশু দের মধ্যে বসে আঁকো প্রতিযোগিতাও অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণকারি সকলকে পুরস্কারও প্রদান করা হয়।

সাধারণতঃ জনমানসে থানাপুলিশ নিয়ে একটি ভ্রান্ত ধারনা থাকে। এক শ্রেণীর লোক এখনও পুলিশকে দেখলে ভয় পায়। কিন্তু পুলিশও যে সমাজের জন্য কল্যাণের জন্য তাদের দায়িত্বের থেকে বাড়তি কিছু করতে পারে, তার নজির রাখল পানিসাগর থানার পুলিশ। এ হেন ব্যতিক্রমী কর্মকান্ডে গোটা মহকুমার শুভবুদ্ধি সম্পন্ন জনগনের মধ্যে খুশির বাতাবরণ পরিলক্ষিত হয়। আরক্ষা প্রশাসনের এই ধরনের ভূমিকা নিঃসন্দেহে অতুলনীয় বলে মনে করছেন বিজ্ঞমহল।

কোন মন্তব্য নেই