HeadLogo

সাংবাদিকের বাড়িতে চোরেদের হানা, পুলিশের দায়িত্বে প্রশ্নচিহ্ন

সবুজ ত্রিপুরা, চুড়াইবাড়ি প্রতিনিধি, ২৬ অক্টোবর : আবারো পুলিশ প্রশাসনকে আবারও চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দুঃসাহসিক চুরি কান্ড সংঘটিত করল চোরের দল। একই রাতে পৃথক পৃথকভাবে দুটি চুরি কান্ড সংঘটিত হলো চুরাইবাড়ি থানা এলাকায়। পরপর এইসব দুষ্কর্মের পর পুলিশ চোরের টিকিরও নাগাল পাচ্ছে না। ধর্মীয় স্থান থেকে শুরু করে ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান এবং বাড়িঘর কিছুই যেন রক্ষা পাচ্ছে না নিশিকুটুম্বদের হাত থেকে। আজকের এই চুরি কাণ্ডটি সংঘটিত হয় খোদ সাংবাদিকের বাড়িতে।

চুরাইবাড়ি এলাকার সাংবাদিক আব্দুল হান্নানের বাড়িতে চুরির ঘটনার পর পুলিশ। ছবি : কিশোররঞ্জন হোর।

ঘটনার বিবরণে প্রকাশ, গতকাল গভীর রাতে উত্তর জেলার চুরাইবাড়ি এলাকার বিশিষ্ট সাংবাদিক ও ধর্মনগরের নিউজ বাংলা চ্যানেলের কর্ণধার তথা ব্যবসায়ী আব্দুল হান্নানের বাড়িতে হাত সাফাই করলো চোরের দল। নিত্য দিনের মতো রাতের খাবার খেয়ে সপরিবারে ঘুমিয়ে পড়েন নিজ ঘরে। কিন্তু এত গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন ছিলেন বাড়ির সকলে যে কোনও কিছুই আঁচ করতে পারেননি। তখনই ঘরের মধ্যে থাকা আলমারির লক ভেঙ্গে বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ ও রূপার অলঙ্কার এবং নগদ অর্থ লুটে নিয়ে যায় চোরের দল।
প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে সকলকে গভীর ঘুম পাড়ানোর জন্য কোনও ধরনের ঔষধ ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছিলো। কারণ ঘরের মধ্যে থাকা চারজন লোকের একই সময়ে এতটা গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন হওয়ার কথা নয়। ঘটনার খবর পেয়ে সকালেবেলা চুরাইবারি থানার ওসি জয়ন্ত দাস সহ অন্যান্য পুলিশ অফিসাররা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন এবং সরজমিনে ঘটনাটির তদন্ত করে যান। অবশ্য ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ এক সন্দেহভাজনকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।
এদিকে, এই চুরি যাওয়া সামগ্রী গুলি হলো ১৮ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ৬ ভরি রূপাসহ নগদ ৪৫ হাজার টাকা এবং ২ টি মোবাইল ফোন নিয়ে যায় চোরের দল। অর্থাৎ আনুমানিক প্রায় দশ লক্ষ টাকার মতো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা যায়। পাশাপাশি বাড়ির মালিক ও পুলিশের প্রাথমিক ধারণা, সন্ধ্যারাতে চোর ঘরে ঢুকে কোথাও লুকিয়ে রয়েছিলো। আর গভীর রাতে গৃহস্থের ঘুমের সুযোগ নিয়ে চুরি কান্ড সংঘটিত করেছে। কেননা ঘরের কোন দরজা জানালা ভাঙ্গার চিহ্ন নেই।
অপরদিকে একই দিনে প্রেমতলা বাজারের প্রসাধনী দোকান ব্যবসায়ী অজিত দেবের দোকানেও চুরি কান্ড সংঘটিত করে চোরের দল। দোকানের দরজার তালা ভেঙ্গে দোকানে প্রবেশ করে নগদ ১৫ হাজার টাকা সহ বিপুল পরিমাণ সামগ্রী লুটে নিয়ে চম্পট দেয় নিশিকুটুম্বের দল। চুরাইবাড়ি থানার পুলিশ পরপর দুটি চুরি কাণ্ডের পর মাঠে নামলেও চুরি যাওয়া সামগ্রী ও চোরদের পাকড়াও করতে পারেনি। এখন কেবল সময়ের অপেক্ষা।


কোন মন্তব্য নেই